চুরির অভিযোগে স্কুলছাত্রকে পেটালেন দোকানদার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি বরগুনা
প্রকাশিত: ০৮:৫৩ এএম, ০৪ অক্টোবর ২০২১

বরগুনায় চুরির অভিযোগে মো. শাওন নামে তৃতীয় শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম করেছে এক মুদি দোকানদার। রোববার (৩ অক্টোবর) বিকেলে সদর উপজেলার কলাতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্কুলছাত্র মো. শাওন (১১) বরগুনা সদর ইউনিয়নের পার্বতী গ্রামের শামীম হাওলাদারের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, রোববার বিকেলে পার্শ্ববর্তী গ্রাম কলাতলায় ঘুরতে যেয়ের বাদশা মল্লিকের (৪৫) মুদি দোকানে গিয়ে বসে শাওন। তখন দোকানদার বাদশা ঘুমাচ্ছিলেন। ঘুম থেকে জেগে শাওনকে দোকানে বসে থাকতে দেখে টাকা ও খাবার চুরির অভিযোগে তাকে বেধড়ক মারধর করে। পরে শিশুটির পরিবার এসে তাকে উদ্ধার করে বরগুনা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

শাওনের চাচা সারোয়ার হোসেন মিন্টু জাগো নিউজকে জানান, বিকেল ৫টার দিকে টিভি দেখতে বসে শাওন। একটু পরে বিদ্যুৎ চলে যাওয়ায় বাইরে ঘুরতে বের হয়ে পাশের কলাতলা এলাকায় যায়। এসময় মুদি দোকানদার বাদশা মল্লিকের দোকানে বসে। দোকানদার বাদশা তখন দোকানেই ঘুমাচ্ছিলেন। হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে শাওনকে দোকানে বসা দেখে তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন বাদশা মল্লিক। এসময় স্টিলের লম্বা টর্চ লাইট দিয়ে তাকে বেধড়ক মারধর করে। এক পর্যায় শাওনের পেটে লাথি মারে এবং গলায় পা দিয়ে চেপে ধরে। এতে শাওন গুরুতর আহত হয়।

তিনি বলেন, ‘একটি ১১ বছরের শিশুকে যে এত নিকৃষ্ট ভাবে মারতে পারে সে মানুষ হতে পারেনা। আমরা নির্যাতনকারী দোকানদার বাদশার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বাদশা মল্লিকের সাথে একাধিকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম তারিকুল ইসলাম জাগো নিউজকে জানান, মারধরের খবর শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির নানা সন্ধ্যার দিকে থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এফআরএম/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]