বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে এবার বগুড়া আ’লীগ নেতার কটূক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৬:৫৯ পিএম, ২৬ নভেম্বর ২০২১

এবার বগুড়ার শেরপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব আম্বীয়ার বিরুদ্ধে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ উঠেছে।

তাকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবিতে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছেন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। একই দাবিতে দলটির জেলা ও কেন্দ্রীয় সভাপতি-সম্পাদক বরাবর স্মারকলিপি দেন তারা।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে পাঁচ শতাধিক মানুষ অংশ নেন।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত উপজেলার ৯ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে ঘিরে ঘরোয়া বৈঠকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব আম্বীয়ার গোপনে ধারণ করা বিতর্কিত বক্তব্যের একটি ভিডিও ও অডিও রেকর্ড শুক্রবার সকাল থেকে এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এনিয়ে শহরজুড়ে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। ক্ষোভে ফেটে পড়েন দলীয় নেতাকর্মীরা।

ফাঁস হওয়া ১৫ মিনিটের ওই অডিও রেকর্ডে আহসান হাবিব আম্বীয়াকে বলতে শোনা যায়, ইউনিয়নের নির্বাচনকে ঘিরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভ্রাম্যমাণ মাজার নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘুরলেও জনগণ ভোট দেবে না। এরপর দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে কূরুচিপূর্ণ কথা বলেন তিনি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বদরুল ইসলাম পোদ্দার ববি জাগো নিউজকে বলেন, অডিওটি আমি শুনেছি। এটি একটি জঘন্যতম মন্তব্য। বিষয়টি দলীয় ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে জানানো হয়েছে।

ভাইরাল অডিও ও ভিডিও রেকর্ড প্রসঙ্গে জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব আম্বীয়া জাগো নিউজকে বলেন, এটা আমার নয়। কারা এটি করেছে সে বিষয়ে আমি খোঁজখবর নেবো। তিনি আরও বলেন, খানপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর লোকজন এই বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

শেরপুর টাউন পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) সাম্মাক হোসেন বলেন, মিছিল শেষে কিছু সময়ের জন্য মহাসড়ক অবরোধ করে সমাবেশ করার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু তারা সেটি করতে পারেননি। পুলিশ তাদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দিয়েছে। তাই তেমন কোনো যানজটের সৃষ্টি হয়নি বলে দাবি করেন এ পুলিশ কর্মকর্তা।

এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]