বগুড়ায় পাওনাদারদের চাপে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৪:০৯ পিএম, ০৩ জুলাই ২০২২
ফাইল ছবি

বগুড়ার আদমদীঘিতে পাওনাদারদের চাপে বিধান বর্মণ (৫২) নামে এক ব্যবসায়ী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তিনি উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়নের পুশিন্দা হিন্দুপাড়ার অনিল বর্মণের ছেলে।

রোববার (৩ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টায় মুরইল বাজারে নিজ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের নির্মাণাধীন ঘরে তিনি আত্মহত্যা করেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মুরইল বাজারে বিধান বর্মণের মেসার্স তৃপ্তি ট্রেডার্স নামে রড-সিমেন্টের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। ব্যবসা করতে গিয়ে তিনি নিজের ও স্ত্রীর নামে বিভিন্ন এনজিও এবং ব্যক্তির কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা ঋণ নেন। ঋণের চাপে কিছুদিন তিনি আত্মগোপনে ছিলেন। কয়েকদিন আগে তিনি এলাকায় ফিরে আসেন। বিষয়টি পাওনাদাররা জানতে পেরে টাকা আদায়ের জন্য বাড়ি ও তার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে টাকা পরিশোধের জন্য চাপ দেন। শুধু তাই নয়, কয়েকদিন আগে এক পাওনাদার টাকা না পেয়ে তার বাড়ি থেকে গরু নিয়ে যান।

বিধান বর্মণের ছেলে মিহির বর্মণ বলেন, রোববার সকালে পাওনাদাররা মুরইল বাজারে বাবার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে এসে টাকার জন্য চাপ দেন। এসময় বাবা পাওনাদারদের বসিয়ে রেখে পাশের নির্মাণাধীন ঘরে সবার অজান্তে বৈদ্যুতিক ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। তিনি সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে দেরি হওয়ায় স্থানীয়রা জানালা দিয়ে দেখেন বাবা গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আদমদীঘি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তারেক হোসেন বলেন, খবর পেয়ে বেলা সাড়ে ১১টায় বিধান বর্মণের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে তার মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

এমআরআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]