কুয়াকাটা সৈকতেও দেখা মিলবে প্যারাসেইলিং

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক কলাপাড়া (পটুয়াখালী)
প্রকাশিত: ১০:২৯ এএম, ০৭ আগস্ট ২০২২

অডিও শুনুন

পাখির মতো আকাশে উড়ে বেড়ানোর সাধ কার না জাগে। প্যারাসেইলিংয়ের মাধ্যমে তা এখন সম্ভব হচ্ছে। দিন দিন এর জনপ্রিয়তা বাড়ছে। বেশ কয়েকবছর ধরে পর্যটকরা কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে প্যারাসেইলিংয়ের আনন্দ নিচ্ছেন। এবার পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় সমুদ্র সৈকতেও দেখা মিলেছে এ মানব ঘুড়ির।

গত কয়েকদিন ধরে কুয়াকাটা সৈকতে পরীক্ষামূলকভাবে প্যারাসেইলিং করা হচ্ছে। এক নজর দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন পর্যটক ও স্থানীয় বাসিন্দা। তবে বাণিজ্যিকভাবে এ মানব ঘুড়ি আকাশে উড়াতে অনুমতির অপেক্ষায় সি-বিচ ট্যুরিজম কর্তৃপক্ষ।

kuakata4

নওগাঁ থেকে আসা পর্যটক আফরোজা বলেন, ‘কুয়াকাটা এসে সৈকত উপভোগ করছিলাম। দেখলাম পাখির মতো কিছু একটা আকাশে উড়ছে। পরে দেখলাম স্পিডবোটের সাহায্যে প্যারাসেইলিং করছে। ইচ্ছে হলো নিজেও করি। কিন্তু এটি নাকি পরীক্ষামূলকভাবে উড়ানো হয়েছে। তাই আর উঠতে পারলাম না। তবে যদি এটাকে প্রতিনিয়ত করা হয় পর্যটকরা বাড়তি বিনোদন পাবে।’

সি-বিচ ট্যুরিজমের মালিক লিটন খান জাগো নিউজকে বলেন, চার বছরের একটি অভিজ্ঞতা নিয়ে আমি কুয়াকাটা সৈকতে প্যারাসিলিংয়ের যাত্রা শুরুর চেষ্টা করছি। জেলা প্রশাসনের অনুমতি পেলেই পর্যটকদের বিনোদনে নতুন মাত্রা যোগ হবে।’

kuakata4

তিনি আরও বলেন, ‘এ প্যারাসুট উড়াতে আমরা এখানে একটি স্পিডবোট কিনেছি। নিরাপত্তার জন্য একটি ওয়াটার বাইক ব্যবহার করা ও দক্ষ চালক নিয়োগসহ সার্বিক ব্যবস্থা এরই মধ্যে নেওয়া হয়েছে। অনুমতির জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছি। অনুমতি পেলে সবসময়ই প্যারাসেইলিং করানো হবে।’

ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব কুয়াকাটার (টোয়াক) সভাপতি রুমান ইমতিয়াজ তুষার জাগো নিউজকে বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর মূলত কুয়াকাটায় ব্যাপক পর্যটকের আগমন ঘটছে। আগত পর্যটকরা এখানে কক্সবাজারের ফ্লেভারটা চাচ্ছে। বিচ অ্যাক্টিভিটির জন্য পর্যটকদের বিনোদনে প্যারাসেইলিং ও স্কুটার প্রয়োজন। তবে এগুলো হতে হবে পর্যটকবান্ধব।’

kuakata4

কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ জোনের সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল খালেক জাগো নিউজকে বলেন, ‘প্যারাসুট মূলত পর্যটক আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু। এটা মূলত কীভাবে উড়ানো যাবে বা বিচবান্ধব কি না কিংবা বিচে উড়ানো সম্ভব কি না, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে কি না এসব দিক বিবেচনা করে বিষয়টি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।’

শনিবার (৬ আগস্ট) কুয়াকাটা বিচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির এক বৈঠকে জেলা প্রশাসক কামাল হোসেন বলেন, ‘সৈকতে প্যারাসেইলিং করানো যাবে। তবে আমাদের একটি টিম সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা এবং পর্যটকদের নিরাপত্তা ও সাশ্রয়ের কথা বিবেচনার পর অনুমতি দেওয়া হবে।’

আসাদুজ্জামান মিরাজ/এসজে/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।