টিসিবি পণ্য কিনতে রাত ১০টায়ও শত মানুষের ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:২০ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২১

ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ট্রাক দাঁড়িয়ে পণ্য বিক্রি করছে রাত দশটায়। আর এত রাতেও সাশ্রয়ী দামে পণ্য কিনতে শত শত মানুষ ভিড় করেছে রাস্তায়। বৃহস্পতিবার রাতে হাজীপাড়া পেট্রোল পাম্পের সামনে এমন চিত্র দেখা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে টিসিবির ডিলার তৌহিদ ইন্টারপ্রাইজের বিক্রয়কর্মী তপু বলেন, বিক্রির জন্য নির্ধারিত জায়গা ছিল সিপাহীবাগ। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে সিরিয়াল দিয়ে টিসিবির গোডাউন থেকে মাল পেতে বিকেল ৪টা বেজে যায়। এরপর সিপাহীবাগ এসে কিছুক্ষণ বিক্রি করে হাজীপাড়া এসেছি।

তিনি জানান, বিকেলে স্পটে (সিপাহীবাগ) যাওয়ার কারণে সেখানে হাজার হাজার মানুষের ভিড় হয়ে যায়। সে কারণে কিছুক্ষণ বিক্রির পরে পরিস্থিতি অনিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়ে। এরপর ট্রাক নিয়ে মালিবাগ চলে এসেছেন তারা।

এই বিক্রয়কর্মী জানান, ডিলারদের যে বরাদ্দ দেওয়া হয়, তাতে আড়াইশো থেকে ৩০০ মানুষের কাছে পণ্য বিক্রি করা যায়। কিন্তু স্পটে হাজার হাজার মানুষ চলে আসে পণ্য কিনতে। এ কারণে বিক্রি করতে হিমশিম খেতে হয়।

তিনি জানান, এছাড়া গোডাউনে দীর্ঘ সিরিয়াল থাকার কারণে বেশিরভাগ সময় পণ্য ঠিক সময় পাওয়া যায় না। সকালে পণ্য নিয়ে স্পটে যাওয়ার কথা থাকলেও পণ্য তুলতে তুলতে দুপুর থেকে বিকেল হয়ে যায়।

এদিকে সিপাহীবাগে পণ্য কিনতে না পেরে ট্রাকের খোঁজে মালিবাগ চলে এসেছেন শাহানা আক্তার। তিনি বলেন, ওখানে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে ছিলাম। হুট করে ঝামেলা শুরু হয় ট্রাক চলে এসেছে। পরে এখানে এসেছে জানতে পেরে আসলাম। এখানেও এখন পণ্য পাচ্ছি না। বড় লাইন।

লাইনে দাঁড়িয়ে মোজাফফর বলেন, এত রাতে হুট করে অনেক মানুষ কোথা থেকে আসলো আল্লাই জানে। আসলে মানুষের অনেক অভাব। কম দামে পেলে সবাই নিতে চায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, মালিবাগেও প্রায় শতাধিক মানুষ সেখানে ভিড় করছে। কিন্তু ডিলার জানাচ্ছে পণ্য দেওয়া যাবে আর কয়েকজনকে। তাতে লাইনের পেছনে থাকা অনেকে অসন্তোষ নিয়ে ফিরে যাচ্ছেন।

এদিকে সাধারণ মানুষের চাহিদা বিবেচনায় রোববার ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে টিসিবির এ পণ্য বিক্রি কার্যক্রম। গত ৬ অক্টোবর থেকে সারা দেশব্যাপী পণ্য বিক্রির এ কার্যক্রম বৃহস্প্রতিবার (২৮ অক্টোবর) শেষ হওয়ার কথা ছিল।

বৃহস্প্রতিবার টিসিবির মুখপাত্র হুমায়ূন কবির জাগো নিউজকে বলেন, বাজারে চাহিদার কথা বিবেচনা করে বিক্রি কার্যক্রম তিনদিন বাড়ানো হয়েছে। এসময় সকল পণ্য আগের দামেই বিক্রি হবে।

এ কার্যক্রম শিগগিরই ফের চালু হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাজার পরিস্থিতির উধ্গগতি বিবেচনায় আগামী মাসের টিসিবির বিক্রি চালিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। তার চূড়ান্ত হচ্ছে। সামনের মাসের প্রথম সপ্তাহে আবারো এ কার্যক্রম পুরনায় চালু হতে পারে।

সংস্থাটির ট্রাক থেকে প্রতি কেজি চিনি পাওয়া যাবে ৫৫ টাকায়, যা একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ চার কেজি কিনতে পারবেন। প্রতি কেজি মসুর ডাল পাওয়া যাবে ৫৫ টাকায়, যা একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ দুই কেজি কিনতে পারবেন। পেঁয়াজ পাওয়া যাবে ৩০ টাকা দরে, যা একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ চার কেজি কিনতে পারবেন। এছাড়া সয়াবিন তেল ১০০ টাকা লিটারে একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ দুই লিটার নিতে পারবেন।

এনএইচ/এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]