আশাপূর্ণা দেবী ও স্টিফেন হকিংয়ের জন্ম

ফিচার ডেস্ক
ফিচার ডেস্ক ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:০৬ এএম, ০৮ জানুয়ারি ২০২২

মানুষ ইতিহাস আশ্রিত। অতীত হাতড়েই মানুষ এগোয় ভবিষ্যৎ পানে। ইতিহাস আমাদের আধেয়। জীবনের পথপরিক্রমার অর্জন-বিসর্জন, জয়-পরাজয়, আবিষ্কার-উদ্ভাবন, রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজনীতি একসময় রূপ নেয় ইতিহাসে। সেই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনা স্মরণ করাতেই জাগো নিউজের বিশেষ আয়োজন আজকের এই দিনে।

৮ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার। ২৪ পৌষ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ।

ঘটনা
১৬৭৯- ফরাসি নাবিক ও পর্যটক সিয়্যর দ্য লা সাল নায়গ্রা জলপ্রপাতে পৌঁছান।
১৭৮০- ইরানের তেবরিজ শহরে ৭.৭ মাত্রার ভূমিকম্পে প্রায় ৮০ হাজার মানুষ নিহত হয়।
১৯৬৩- প্রথমবারের মতো লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির বিখ্যাত পেইন্টিং মোনালিসা আমেরিকার ন্যাশনাল গ্যালারী অব আর্টে প্রদর্শন।
১৯৭২- পাকিস্তানের কারগার থেকে শেখ মুজিবকে মুক্তি দান, লন্ডনের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন।
১৯৯৬- জায়ারে পরিবহন বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১ হাজার নিহত হয়।

জন্ম
১৯০৯- ভারতীয় বাঙালি ঔপন্যাসিক, ছোটগল্পকার ও শিশুসাহিত্যিক আশাপূর্ণা দেবী। তার জন্ম উত্তর কলকাতায় মাতুলালয়ে। বিংশ শতাব্দীর বাঙালি জীবন, বিশেষত সাধারণ মেয়েদের জীবনযাপন ও মনস্তত্ত্বের চিত্রই ছিল তার রচনার মূল উপজীব্য। ব্যক্তিজীবনে নিতান্তই এক আটপৌরে মা ও গৃহবধূ আশাপূর্ণা ছিলেন পাশ্চাত্য সাহিত্য ও দর্শন সম্পর্কে সম্পূর্ণ অনভিজ্ঞা। বাংলা ছাড়া দ্বিতীয় কোনো ভাষায় তার জ্ঞান ছিল না। পশ্চিমবঙ্গের সর্বোচ্চ সম্মান রবীন্দ্র পুরস্কারসহ অনেক সম্মাননা পেয়েছেন তিনি।
১৯২৪- ইংরেজ অভিনেতা, গায়ক, সুরকার এবং লেখক রন মুডি।
১৯২৬- কিংবদন্তি ভারতীয় ধ্রুপদী নৃত্যশিল্পী, গুরু এবং ওডিশি নৃত্যের উদ্গাতা কেলুচরণ মহাপাত্র।
১৯৩৫- প্রবাদপ্রতিম ভারতীয় বাঙালি অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী।
১৯৩৫- কিংবদন্তিতুল্য মার্কিন রক সংগীত শিল্পী এলভিস প্রেসলি।
১৯৪২- ইংরেজ পদার্থবিদ স্টিফেন হকিং। গ্যালিলিও গ্যালিলাই-এর মৃত্যুর ঠিক ৩০০ বছর পরে জন্ম তার। একজন ইংরেজ তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী, গণিতবিদ, বিশ্বতাত্ত্বিক ও বিজ্ঞান-বিষয়ক জনপ্রিয় ধারার লেখক।

তাকে ২০ শতকের অন্যতম সেরা তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানীদের একজন হিসেবে গণ্য করা হয়। হকিং যুক্তরাজ্যের ইংল্যান্ডের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের তাত্ত্বিক মহাবিশ্বতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্রের (সেন্টার ফর থিওরেটিক্যাল কসমোলজি) প্রধান ছিলেন।

মৃত্যু
১৮৮৪- ভারতের বাঙালি ব্রাহ্মনেতা, বক্তা ও বাঙালি হিন্দু সমাজের অন্যতম ধর্মসংস্কারক কেশবচন্দ্র সেন।
১৯৩৪- রুশ দেশের একজন প্রখ্যাত সাহিত্যিক আন্দ্রে বেলি।
১৯৬৬- আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিচালক বিমল রায়।
১৯৭২- বাংলার প্রখ্যাত শিশু-সাহিত্যিক কৃষ্ণদয়াল বসু।
১৯৮৩- স্বাধীনতা সংগ্রামী ও নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসুর সহযোগী সত্যরঞ্জন বকসি।
২০১৩- বাংলাদেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ নির্মল সেন।

কেএসকে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]