ছাড়া পেলো সুয়েজ খালে আটকে পড়া এভার গিভেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫০ পিএম, ০৫ জুলাই ২০২১

সুয়েজ খালে আটকে পড়া কনটেইনারবাহী জাহাজ এভার গিভেন অবশেষে মিসর থেকে ছাড়া পাচ্ছে। প্রায় তিন মাস ধরে জাহাজ মালিকপক্ষ ও বিমা কোম্পানির সাথে সমঝোতা মাধ্যমে রবিবার খাল কর্তৃপক্ষ এ ঘোষণা দেয়। মিশরের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী বুধবার (৭ জুলাই) জাহাজটি কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করা হবে। সুয়েজ খাল থেকে উদ্ধার হওয়ার পর জাহাজটিকে এতদিন মিসরের গ্রেট বিটার লেকে রাখা হয়েছে।

তবে কি শর্তে মিসর এভার গিভেন জাহাজটিকে ছাড় দিয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। যদিও ছাড়ের জন্য মিসরের পক্ষ থেকে দাবি ছিল ৫৫০ মিলিয়ন ডলার। সুয়েজ কর্তৃপক্ষের দাবি, জাহাজটি আটকে যাওয়ায় দৈনিক এক থেকে দেড় কোটি ডলারের রাজস্ব হারাতে হয়েছে তাদের।

জাহাজটি সুয়েজ খালে আটকে পড়ায় ঘটনায় ক্ষতিপূরণ দাবি করে মিসর সরকার। শুরুতে দেশটির দাবি ছিল ৯১ কোটি ৬০ লাখ ডলার। যদিও জাহাজ মালিকপক্ষের আপত্তির মুখে তা ৫৫ কোটি ডলার নির্ধারিত হয়।

গত ২৩ মার্চ সুয়েজ খালে আটকা পড়ে পণ্যবাহী জাহাজ এভার গিভেন। লোহিত সাগর থেকে ভূমধ্যসাগরে যাওয়ার সময় দুই লাখ টনের এই জাহাজ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খালটিতে আড়াআড়িভাবে আটকে যায়। নিয়ন্ত্রণ হারানোর আগে জাহাজটি প্রবল বাতাস ও ধূলিঝড়ের কবলে পড়েছিল। ফলে বন্ধ হয়ে যায় বিশ্বের অন্যতম ব্যস্ততম এই বাণিজ্যিক রুট।

এতে সুয়েজ খালের দুই প্রবেশমুখে জাহাজজট তৈরি হয়। জটে আটকে পড়ে সাড়ে ৩শ’ বেশি জাহাজ। এ অবস্থায় গত ২৪ জুলাই থেকে শুরু হয় উদ্ধারকাজ। অবশেষে ছয় দিন আটকে থাকার পর শেষ পর্যন্ত মুক্ত করা হয় এভার গিভেনকে।

২০১৮ সালে তৈরি জাহাজটির দৈর্ঘ্য ৪০০ মিটার। ওজন প্রায় ২ লাখ ২০ হাজার টন। জাহাজটি ২০ হাজার কনটেইনার ধারণ করতে সক্ষম। জাহাজটিতে ১৮ হাজার ৩০০ কনটেইনার ছিল।

সূত্র: বিবিসি

এএমকে/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]