উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত : বদলে গিয়েছিল ফয়সাল-নাজিয়ার মরদেহ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৩১ এএম, ০৫ এপ্রিল ২০১৮

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে নিহত বৈশাখী টেলিভিশনের সাংবাদিক ফয়সাল আহমেদের মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। ফয়সালের মরদেহ নিহত নাজিয়া আফরিন চৌধুরীর পরিবারের কাছে এবং নাজিয়ার মরদেহ ফয়সালের পরিবারের কাছে হস্তান্তর হয়েছিল।

বুধবার (৪ এপ্রিল ) ঢাকা মহানগর হাকিম শেখ হাফিজুর রহমানের আদালতে নিহত ফয়সালের ভাই সাইফুল ইসলাম একটি আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত ফয়সালের মরদেহ বনানী কবরস্থান থেকে তুলে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করার জন্য ঢাকা জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দেন।

সাইফুলের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আশরাফ উল আলম বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, নিহত ফয়সালের ভাই সাইফুল ইসলাম ও নাজিয়ার ভাই আলী আহাদ চৌধুরী একটি হলফনামা জমা দেন। উভয় পরিবার দাবি করেছে, ভুলক্রমে দুইজনের মরদেহ বদল হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়টি নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে কথা হয়েছে। উভয় পরিবারই ওই দুজনের মরদেহ তুলে পরষ্পরের কাছে হস্তান্তর ও যার যার কবরস্থানে নতুন করে কবর দেয়ার আবেদন করেন আদালতে।

তিনি আরও বলেন, বৃহস্পতিবার শরিয়তপুর আদালতে নাজিয়া আফরিন চৌধুরীর মরদেহ উত্তোলনের জন্য একটি আবেদন করা হবে।

ফয়সালের ভাই সাইফুল তার আবেদনে বলেন, ২০ মার্চ তার ভাইয়ের মরদেহ গ্রহণ করেন তার মামা কায়কোবাদ। শরীয়তপুরে গ্রামে নেয়ার পর জানাজা শেষে যখন কবর দেয়ার জন্য কফিন থেকে মরদেহ বের করা হয় তখন দেখেন, এটি তার ভাইয়ের নয়। মরদেহটি পলিথিনে মোড়ানো ছিল। সেখানে লেখা ছিল নাজিয়া আফরিন চৌধুরী। কিন্তু পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসীর মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টির আশঙ্কায় নাজিয়ার মরদেহ সেদিন সেখানেই দাফন করা হয়।

গত ১২ মার্চ নেপালে উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় নিহত হন ২৬ বাংলাদেশি। ২০ মার্চ তাদের মরদেহ নিয়ে আসা হয় বাংলাদেশে। ফয়সালের মরদেহ নিহত নাজিয়া আফরিন চৌধুরীর পরিবারের কাছে এবং নাজিয়ার মরদেহ ফয়সালের পরিবারের কাছে হস্তান্তর হয়েছিল। ফয়সালের মরদেহ দাফন করা হয়েছে বনানী কবরস্থানে। আর নাজিয়াকে দাফন করা হয় শরিয়তপুরের ডামুড্যা গ্রামে।

জেএ/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :