বঙ্গবন্ধু ছিলেন জনগণের সেবক : এ বি এম খায়রুল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫২ পিএম, ২৪ আগস্ট ২০১৯

জাতীয় আইন কমিশনের চেয়ারম্যান সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হক বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী ও রাজনৈতিক দর্শন বিষয়ে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে আরও সচেতন করতে হবে। জাতীয় পাঠ্যক্রমে এ বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা। তিনি সবসময় মনে করতেন দেশের শাসক নন, জনগণের একজন সেবক।

শনিবার বিচারপ্রশাসন ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিচারপ্রশাসন ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিচারপ্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খোন্দকার মুসা খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- ইনস্টিটিউটের পরিচালক (প্রশাসন) এস এম জিয়াউর রহমান, পরিচালক (গবেষণা ও প্রকাশনা) মীর মো. এমতাজুল হক, উপ-পরিচালক (গবেষণা ও প্রকাশনা) ড. মো. আলমগীর, উপ-পরিচালক (প্রশিক্ষণ) আল আসাদ মো. মাহমুদুল ইসলাম, উপ-পরিচালক (প্রশাসন) আলমগীর এস রহমান, সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মদ বদিউজ্জামান, সহকারী পরিচালক (প্রশিক্ষণ) মেহেনাজ সিদ্দিকী ও নাহিদ নিয়াজী, গবেষণা কর্মকর্তা নাজমুন নাহার নিপুসহ ইনস্টিটিউটের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারী। এছাড়াও ৩৯তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশগ্রহণকারী ৪৫ জন সহকারী জজ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হক বলেন, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধু তার যোগ্য নেতৃত্বে ধাপে ধাপে এদেশকে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দিকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। স্বাধীনতার এই মহান স্থপতি ও তার পরিবারবর্গকে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। যা ছিল বিশ্ব ইতিহাসের নিকৃষ্টতম হত্যাকাণ্ড। এ হত্যার নেপথ্য কুশীলবদের স্বরূপ উন্মোচনের জন্য একটি স্বাধীন কমিশন গঠনের মাধ্যমে তদন্ত পরিচালনার জন্য সরকারের কাছে প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

বিচারপতি খোন্দকার মুসা খালেদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের গুণাবলির পাশাপাশি তার মানবিক গুণাবলিও ছিল অপরিসীম। আমরা যদি নিজ নিজ কর্তব্য নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে পারি তবেই তার রক্তের ঋণ শোধ হবে।

এফএইচ/বিএ/এমএস