মসজিদে আকসায় ফিলিস্তিনিদের হিজরি নববর্ষ ১৪৪১ উদযাপন

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১০ এএম, ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

হিজরি নববর্ষের মুহররমের প্রথম দিন আজ। আরবি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী হিজরি বছরের প্রথম দিন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইসলামের জন্য মহান আল্লাহর নির্দেশে প্রিয় জন্মভূমি মক্কা মুকাররমা ছেড়ে যখন মদিনায় হিজরত করেন তখন থেকেই হিজরি (আরবি) বছরের গণনা শুরু হয়। পবিত্র হিজরতের সঙ্গে সম্পর্কিত বিধায় আরবি এ সালকে হিজরি সাল বলা হয়।

বাংলাদেশে রোববার হিজরি সাল শুরু হলেও আরববিশ্বে একদিন আগেই শুরু হয়েছে হিজরি বর্ষ। এ উপলক্ষ্যে মুসলমানদের প্রথম কেবলা ও অসংখ্য নবি-রাসুলের আবাদকৃত মসজিদ বিখ্যাত মসজিদুল আকসায় বর্ণিল আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে ১৪৪১ হিজরি নববর্ষ।

ফিলিস্তিনি গণমাধ্যম ওয়াফা নিউজ এজেন্সির তথ্য মতে, ‘ইসরাইল অধিকৃত জেরুজালেমে অবস্থিত ইসলামের তৃতীয় মর্যাদাপূর্ণ মসজিদ আল আকসা প্রাঙ্গনে নববর্ষ উদযাপন করতে জমায়েত হন শতশত ফিলিস্তিনি মুসলিম।

মসজিদে আকসা চত্ত্বরের এ সমাবেশে ধর্মীয় আলোচনা, স্মৃতিচারণ, দোয়া, ইসলামি নাশিদ ও হামত-নাতের মাধ্যমে নববর্ষকে বরণ করে নেন তারা। অনুষ্ঠান শেষে জেরুজালেম, পশ্চিমতীর এবং অন্যান্য অঞ্চল থেকে সমাগত মুসল্লিদের মাঝে মিষ্টান্নও বিতরণ করা হয়।

হিজরি নববর্ষ উদযাপনব অনুষ্ঠানে আলোচনা পেশ করেন, আল কুদস ও ফিলিস্তিনি অঞ্চলের গ্রান্ড মুফতী শায়খ মুহাম্মাদ হুসাইন। তিনি বলেন, ‘বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হিজরতের স্মৃতিচারণার দিনে বিশ্ব-মুসলিম আজ নিজেদের ও ইসলামের ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ন রাখতে বিরাট সংগ্রামের মধ্যে অবস্থান করছে। এই সংগ্রামকে তিনি ‘বড় পাথর’হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

শায়খ মুহাম্মাদ হুসাইন আরও বলেন, আল্লাহ তাআলা অবশ্যই আমাদেরকে পুনরায় আমাদের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে দেবেন এবং আমরা যেখানেই থাকি আমাদের জন্য কল্যাণ, বরকত, সম্মান ও সাহায্য প্রদান করবেন।

তিনি আল্লাহর সাহায্য চেয়ে বলেন, ‘মসজিদে আকসা মুসলমানদের প্রথম কিবলাই নয় বরং এটা ‘ইসরা ও মেরাজের ভূমি। হিজরি নববর্ষের এ মর্যাদা ও গুরুত্বপূর্ণ দিনে মহান আল্লাহর কাছে মজলুম মুসলিম উম্মাহর প্রার্থনা তিনি যেন নির্যাতিত ফিলিস্তিনিদের ইয়াহুদি আগ্রাসন, হত্যা ও নির্যাতন থেকে মুক্ত করেন দেন।

এই বর্ণিল আয়োজন অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, পবিত্র আল কুদস নগরীর বিচারক ইয়াদ আল আব্বাসী। শনিবার সকাল তেকে শুরু হয়ে জোহরের নামাজ আদায়ের মাধ্যমে নববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

এমএমএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]