বিশ্বনবি কি মুমিন মুসলমানের জন্য দোয়া করতেন?

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:৪৮ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মুমিন নারী-পুরুষের জন্য ক্ষমা, বরকত ও কল্যাণের দোয়া করতেন। মুমিন নারী-পুরুষের জন্য ক্ষমা প্রার্থনার দোয়া করতে আল্লাহ তাআলা প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের প্রতি আয়াত নাজিল করেছেন। আল্লাহ তাআলা বলেন-

وَاسْتَغْفِرْ لِذَنبِكَ وَلِلْمُؤْمِنِينَ وَالْمُؤْمِنَاتِ
(হে রাসুল! আপনি) ক্ষমা প্রার্থনা করুন, আপনার নিজের জন্য এবং মুমিন পুরুষ ও নারীদের জন্য।' (সুরা মুহাম্মাদ : আয়াত ১৯)

কুরআনুল কারিমে নিজের ও মুমিন মুসলমানের জন্য ক্ষমা প্রার্থনার এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নিজের জন্য এবং মুমিন নারী-পুরুষের জন্যও রহমত বরকত কল্যাণ ও ক্ষমা প্রার্থনায় দোয়া করতেন। হাদিসে এর প্রমাণ পাওয়া যায়।

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে বুসর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমার বাবার কাছে এলেন। আমরা তাঁর জন্য খাবার পরিবেশন করলে তিনি তা গ্রহণ করলেন। তারপর খেজুর আনা হলে তিনি তা খেতে থাকলেন। তারপর পানীয় আনা হলে তিনি তা পান করলেন, তারপর পানপাত্র তার ডান পাশের ব্যক্তিকে দিলেন। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে বুসর রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, তারপর আমার বাবা তাঁর সওয়ারীর লাগাম ধরে বললেন, আমাদের জন্য দোয়া করুন। তিনি বললেন-

‏ اللَّهُمَّ بَارِكْ لَهُمْ فِيمَا رَزَقْتَهُمْ وَاغْفِرْ لَهُمْ وَارْحَمْهُمْ ‏
উচ্চারণ : 'আল্লাহুম্মা বারিক লাহুম ফি মা রাযাক্বতাহুম ওয়াগফিরলাহুম ওয়ারহামহুম।'

অর্থ : 'হে আল্লাহ! তাদের যে রিজিক দিয়েছ তাতে বারকত দান করুন, তাদের ক্ষমা করে দিন আর তাদের প্রতি দয়া করুন।' (মুসলিম)

অন্য হাদিসে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাহাবিদের প্রতি অন্যদের জন্য দোয়া করার আদেশ দিতেন মর্মেও হাদিস থেকে জানা যায়। কোনো মুসলমান মারা গেলে তার জন্য তিনি ক্ষমা চাইতেন, সাহাবায়ে কেরামকে ওই মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া করার আদেশ দিতেন। হাদিসে এসেছে-

হজরত ওসমান ইবনে আফফান রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মৃতের দাফন শেষ করে সেখানে দাঁড়িয়ে (সাহাবাদের উদ্দেশ্যে) বলতেন- তোমাদের ভাইয়ের জন্য তোমরা ক্ষমা প্রার্থনা কর এবং সে যেন প্রতিষ্ঠিত থাকে সেজন্য দোয়া করতে থাক। কেননা তাকে এখনই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।' (আবু দাউদ)

সুতরাং মুমিন মুসলমানের দায়িত্ব হলো- কুরআনুল কারিমের নির্দেশ এবং হাদিসের শিক্ষা অনুযায়ী এক মুমিন অন্য মুমিন নারী-পুরুষের জন্য রহমত বরকত ও ক্ষমা প্রার্থনার দোয়া করা। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের আদর্শের অনুসরণ ও অনুকরণ করা।

আশা করা যায়, এক মুমিন অন্য মুমিনের জন্য রহমত বরকত কল্যাণ ও ক্ষমা প্রার্থনার দোয়া করলে আল্লাহ তাআলা তা কবুল করবেন। তাদের প্রতি রহমত, বরকত, কল্যাণ দান করার পাশাপাশি তাদের পাপরাশি ক্ষমা করে দেবেন।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে নিজেদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনাসহ রহমত বরকত ও কল্যাণের দোয়া করার পাশাপাশি অন্য মুমিন মুসলমানদের জন্য বেশি বেশি ক্ষমা প্রার্থনা দোয়া করার তাওফিক দান করুন। হাদিসের উপর যথাযথ আমল করার মাধ্যমে নিজেদের গোনাহমুক্ত করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]