প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার দোয়া


প্রকাশিত: ০৭:০৩ এএম, ১৮ মে ২০১৫

গ্রীষ্মের এই সময়টাতে ঝড়-তুফান, প্রচণ্ড দমকা হাওয়া, মেঘের ভয়াবহ গর্জন ও বিদ্যুৎ চমক অন্যান্য সময়ের চেয়ে বেশি হয়। বিশেষ করে যোগাযোগের সময় সড়কপথ, নৌপথ, আকাশপথে এবং বাড়ি ঘরে অবস্থানে মানুষের অনেকে ভয়ের উদ্রেক হয়। কখনও কখনও মানুষ এই সকল প্রাকৃতিক দুর্যোগের শিকার হন। এগুলো থেকে আমাদেরকে সতর্ক হওয়ার জন্য আল্লাহর দরবারে ফানাহ চাইতে হবে। পাশাপাশি রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের শিখানো ভাষায় আল্লাহর দরবারে ধরনা দিতে হবে।

হাদীসে এসেছে, হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রা.) বলেছেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মেঘের গর্জন শুনলে বা বিদ্যুতের চমক দেখলে সাথে সাথেই এই দোয়া করতেন-

আল্লা-হুম্মা লা- তাক্বতুলনা- বিগযাবিকা ওয়া লা-তুহ্লিকনা- বিআ’জা-বিকা, ওয়া আ’-ফিনা- ক্বাব্লা জা-লিকা।

অর্থ : হে আমাদের প্রভু! তোমার ক্রোধের বশবর্তী হয়ে আমাদের মেরে ফেলো না আর তোমার আযাব দিয়ে আমাদের ধ্বংস করো না। বরং এর আগেই আমাদেরকে ক্ষমা ও নিরাপত্তার চাদরে আবৃত করে নিও। (জামে আত তিরমিজি)।

আল্লাহ তাআ’লা আমাদেরকে তার আযাব তথা সকল প্রকার আপদ-বিপদ, বালা-মুসিবত থেকে হেফাজত করুন। আমীন, ছুম্মা আমীন।

তথ্যসূত্র : জামে আত-তিরমিজি।

সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি, সুবহানাল্লাহিল আজীম ওয়া বিহামদিহি আসতাগফিরুকা ওয়া আতুবু ইলাইকা।

জাগো নিউজ ২৪ ডটকমের সঙ্গে থাকুন। গুরুত্বপূর্ণ দোয়া শিখে আমল করুন। কুরআন-হাদীস মোতাবেক আমলী জিন্দেগী যাপন করুন।

এইচএন/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]