বছরজুড়ে আলোচনা-সমালোচনায় ওরা ১১ জন

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০২:৩৩ পিএম, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭

কালের গর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে আরেকটি বছর। ২০১৭ সালকে বিদায় দিয়ে সবাই প্রস্তুত হচ্ছে ২০১৮ সালকে স্বাগত জানাতে। তবে ২০১৭ সালে ঘটে যাওয়া অনেক ঘটনা কালের সাক্ষী হয়ে থাকবে মানুষের মনে, ইতিহাসে।

ঘটনাবহুল ২০১৭ সালে এমন অনেক ঘটনাই রয়েছে দেশ-বিদেশে পরিচিত ও গুরুত্বপূর্ণ বাংলাদেশের কিছু মানুষকে ঘিরে। যাদের গুরুত্বপূর্ণ, ভালো-মন্দ ঘটনাগুলো প্রায়ই উঠে আসে সামাজিক মাধ্যমে, অনলাইনে, পত্রিকার পাতায় বা টেলিভিশনের পর্দায়।

এদের কেউ আলোচিত, কেউবা সমালোচিত, কেউ নিন্দিত আবার কেউবা নন্দিত। গুরুত্ব বিবেচনায় ফিরে দেখা যাক এমন ১১ ব্যক্তি ও তাদের নিয়ে ঘটনাবলী।

এস কে সিনহার পদত্যাগ
বক্তব্য, পাল্টা-বক্তব্য, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়, আকস্মিক ছুটি, বিদেশে যাওয়া, সেখান থেকে পদত্যাগ- এসব মিলিয়ে বছরজুড়ে আলোচনার শীর্ষে ছিলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে পদত্যাগের আগ পর্যন্ত দুই বছর নয় মাস ২৫ দিনের দায়িত্ব পালনকালে আলোচনা পিছু ছাড়েনি বিচারপতি সিনহার। তবে এ আলোচনা আর বিতর্কের চূড়া স্পর্শ করে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলে তার লেখা রায় নিয়ে। গত ১ আগস্ট আপিল বিভাগের সেই রায়ের পূর্ণাঙ্গ রূপ প্রকাশ পাওয়ার পরের আড়াই মাসে ঘটে নানা ঘটনা। যা প্রথমে ছুটি এবং পরে ১০ নভেম্বর তার পদত্যাগের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

বিচারপতি সিনহার সঙ্গে সরকারের ক্রমবর্ধমান দূরত্ব আরো আগে থেকেই স্পষ্ট হতে শুরু করে। বিশেষ করে, অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা-সংক্রান্ত বিধিমালা নিয়ে সরকারের সঙ্গে প্রধান বিচারপতি সিনহার কথা চালাচালিতে এটি প্রকটভাবে দৃশ্যমান হয়।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে আপিল বিভাগ রায় বাতিলের জন্য যথাযথ আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ এবং ওই রায়ে জাতীয় সংসদ সম্পর্কে ও অন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে প্রধান বিচারপতির ‘অসাংবিধানিক, আপত্তিকর, অপ্রাসঙ্গিক পর্যবেক্ষণ’ বাতিলের জন্য আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের প্রস্তাব জাতীয় সংসদে পাস হয়।

এর আগে ২৭ আগস্ট থেকে সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন ছুটি শুরু হয়, ৩ অক্টোবর নিয়মিত সুপ্রিম কোর্ট খোলার দিন ছিল। এর ঠিক একদিন আগে ২ অক্টোবর এক মাসের ছুটির কথা জানিয়ে সিনহা রাষ্ট্রপতি বরাবর চিঠি দেন, যার মেয়াদ ছিল ১ নভেম্বর পর্যন্ত। এদিন আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞাকে প্রধান বিচারপতির কার্যভার পালনের দায়িত্ব দেয়া হয়।

এরপর প্রধান বিচারপতি সিনহা অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে গত ১৩ অক্টোবর রাতে ঢাকা ছাড়েন। এর আগে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তিনি সুস্থ আছেন। ইদানীং একটা রায় নিয়ে রাজনৈতিক মহল, আইনজীবী ও বিশেষভাবে সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী যেভাবে তার সমালোচনা করেছেন, এতে তিনি বিব্রত।

বিচারপতি সিনহার লিখিত ওই বক্তব্য বিভ্রান্তিমূলক বলে অভিহিত করে পরদিন বিবৃতি দেন সুপ্রিম কোর্ট। এতে রাষ্ট্রপতি, প্রধান বিচারপতি সিনহার বিরুদ্ধে ১১টি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ-সংবলিত দালিলিক তথ্যাদি আপিল বিভাগের বিচারপতিদের কাছে হস্তান্তর করার কথাও জানানো হয়।

গেল ১২ অক্টোবর জারি করা সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুসারে প্রধান বিচারপতির ছুটি শেষ হয় ১০ নভেম্বর। সিঙ্গাপুরে অবস্থান শেষে কানাডায় যাওয়ার পথে ওইদিন সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের হাইকমিশনে তিনি রাষ্ট্রপতি বরাবর পদত্যাগপত্র জমা দেন।

আনিসুল হকের প্রয়াণ
সদ্য প্রয়াত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হকও ছিলেন আলোচনার শীর্ষে। বছরের শেষ দিকে এসে যুক্তরাজ্যে মৃত্যু হয় জনপ্রিয় এ মেয়রের।

৩০ নভেম্বর বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ২৩ মিনিটে লন্ডনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ঢাকা উত্তরকে মাত্র দুই বছরে সাধ্যমতো বদলে দেয়ার রূপকার আনিসুল হক।

নাতির জন্ম উপলক্ষে গত ২৯ জুলাই ব্যক্তিগত সফরে সপরিবারে লন্ডনে যান ৬৫ বছর বয়সী আনিসুল হক। ৪ আগস্ট তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি করার পর তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। তিনি সেরিব্রাল ভাসকুলাইটিসে (মস্তিষ্কের রক্তনালীর প্রদাহ) আক্রান্ত হয়েছিলেন।

তেজগাঁওয়ের ট্রাক স্ট্যান্ড ওই এলাকার মানুষের জন্য একটি জঞ্জাল হিসেবে দেখা দিয়েছিল। দায়িত্ব পেয়ে ওই ট্রাক স্ট্যান্ড সরিয়ে ব্যাপক সুনাম কুড়ান তিনি। এছাড়া সিটি করপোরেশনকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে তার উদ্যোগ প্রশংসা কুড়ায়।

গণমাধ্যম, ব্যবসায় এবং সর্বশেষ জনসেবায় কাজ করা মানুষটির চির বিদায়ে শোক নেমে আসে দেশজুড়ে। সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের নিউজফিড ভারী করে দেয় আনিসুল হকের হাস্যজ্জ্বল মুখের ছবির সঙ্গে তাকে নিয়ে বড়-ছোট লেখাগুলো। তার মৃ্ত্যুতে শোক জানান ষ্ট্রপতি,প্রধানমন্ত্রী, ক্ষমতাসীন দল ও অন্যান্য দলের নেতারা জানান শোক।

শেখ আবদুল হাই বাচ্চুর ব্যাংক কেলেঙ্কারি
রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিশেষায়িত বেসিক ব্যাংক। ঋণ কেলেঙ্কারি ও নানা অনিয়মের কারণে ব্যাংকটি এখন ধ্বংসের মুখে। এর নেপথ্যে ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আবদুল হাই বাচ্চু। বেশ কয়েক বছর ধরে ব্যাংকিং খাতের আলোচিত এ ব্যক্তি বছরের মাঝামাঝিতে এসে বেশি আলোচিত হন।

চলতি বছরের আগস্টে এক মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ বেসিক ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতি ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় বাচ্চু ও পরিচালনা পর্ষদকে আসামি না করায় উষ্মা প্রকাশ করে। ব্যক্তি যেই হোক না কেন- এ ধরনের মামলায় আসামি করার ক্ষেত্রে ‘পিক অ্যান্ড চুজ’ যেন না হয় সে বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) সে সময় সতর্ক করে আদালত। এরপরই নড়েচরে বসে দুদক। শুরু হয় বাচ্চুর জিজ্ঞাসাবাদ। আবদুল হাই বাচ্চু ও তার পরিবারের সদস্যদের ব্যাংকিং লেনেদেনের সব ধরনের নথিপত্র চেয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি দেয় দুদক। সর্বশেষ ঋণ জালিয়াতির ও অর্থ লোপাটের অভিযোগে ব্যাংকটির সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আবদুল হাই বাচ্চুকে আসামি করা হচ্ছে বলে দুদকের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা জানান।

জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য বাচ্চুকে ২০০৯ সালে বেসিক ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ দেয় সরকার। ২০১২ সালে তার নিয়োগ নবায়নও হয়। কিন্তু ঋণ কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠলে ২০১৪ সালে ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ফখরুল ইসলামকে অপসারণ করার পর চাপের মুখে পদত্যাগ করেন আবদুল হাই।

কামরুল ইসলাম ও চালের দাম
ব্রাজিল থেকে ‘পচা’ গম আমদানি, চলতি বছরে চালের দাম অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধির কারণে ও মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারাধীন বিষয় নিয়ে মন্তব্যের পর সাধারণ মানুষের ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

বিশেষ করে চলতি বছরের মাঝামাঝি সময় থেকে চালের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে প্রায় অর্ধবছর ধরে দেশের মানুষের প্রবল আলোচনা-সমালোচনায় ছিলেন তিনি।

গত ঈদুল আজহার আগে প্রতিকেজি মোটা চালের দাম ৪২-৪৪ টাকা থাকলেও সে চালের দাম ৫০-৫৫ টাকায় হওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। চলতি বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর চাল ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে খাদ্যমান্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেছিলেন, চাল নিয়ে রাজনীতি চলছে। দেশে চালের কোনো সংকট নেই। চাল আমদানি অব্যাহত রয়েছে। কৃত্রিম সংকট তৈরি করে চালের মূল্য বাড়াচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

বনানীর হোটেলে ধর্ষণ ও আপন জুয়েলার্স
জন্মদিনের পার্টিতে ডেকে নিয়ে বনানীর হোটেল রেইন ট্রিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই তরুণীকে ধর্ষণ করেন আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার হোসেনের ছেলে সাফাত ও তার সহযোগীরা। পরে এ নিয়ে মামলা হলে তোলপাড় দেখা দেয় দেশজুড়ে।

ওই ধর্ষণকাণ্ডে দিলদার হোসেনের সম্পৃক্ততা না থাকলেও শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত নিজের ছেলের সাফাই ও দুই তরুণীর চরিত্র নিয়ে বার বার প্রশ্ন তোলেন তিনি। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘জোয়ান পোলাপান বয়সকালে একটু আধটু করবেই, এতে হৈ-চৈ করার কি আছে, আমিও করেছি’। তিনি আরও বলেন, ‘ভালো মেয়েরা কি রাতে হোটেলে যায়?’

এছাড়া ওই দুই মেয়ের বিব্রতকর ছবি প্রকাশেরও হুমকি দেন দিলদার। তার দম্ভ ও বেফাঁস মন্তব্যের কারণে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। পরে বিষয়টি গড়ায় তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আপন জুয়েলার্সের দিকে।

২৮ মার্চ রাতে ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার জের ধরে ১৪ মে 'ডার্টি মানি’ বা অসদুপায়ে অর্জিত টাকার অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে দুই দফায় আপন জুয়েলার্সের ছয়টি শাখায় অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দা। স্বর্ণ ও হীরা আমদানির স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় কোনো কাগজপত্র দেখাতে না পাড়ায় প্রথম দফায় এসব শোরুম থেকে ২৮৬ কেজি স্বর্ণ ও ৬১ গ্রাম হীরা এবং দ্বিতীয় দফায় ২১১ দশমিক ৪০৮ কেজি স্বর্ণ ও ৩৬৮ গ্রাম হীরা জব্দ করা হয়।

নুরুল ইসলাম নাহিদ ও প্রশ্নফাঁস
বছরের শুরু থেকে প্রশ্নফাঁস, পাঠ্যবইসহ নানা ইস্যুতে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বছরের শুরুতে পাঠ্যবইয়ে ‘ছাগলের গাছে ওঠা, ও’তে ওড়না’ সহ বিভিন্ন ভুল তথ্য বিষয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। এর সঙ্গে ছিল প্রশ্নফাঁস প্রসঙ্গ। শিক্ষার মান নিয়ে দীর্ঘ সমালোচনা আর বিতর্কের সঙ্গে যুক্ত হয় সৃজনশীল পরীক্ষা পদ্ধতি। এছাড়াও সমাপনী এবং জেএসসি/জেডিসি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভীতি আর অস্থিরতাও ছিল সারা বছর। ঘন ঘন পাবলিক পরীক্ষা ও কোচিং প্রাইভেট নৈরাজ্যে অতিষ্ঠ অভিভাবকদের মধ্যে এসব ভীতি আর অস্থিরতার মধ্যে শুরু হয় একের পর এক প্রশ্নফাঁসের উৎসব।

এ বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ প্রায় প্রতিটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস ও জালিয়াতি ছিল টক অব দ্য ইয়ার। এর সঙ্গে জড়িতরা ধরা পড়লেও অধরা থেকে গেছে মূল হোতারা। মেডিকেল ও ডেন্টালে প্রশ্নফাঁস চক্রের হোতা হিসেবে উঠে এসেছে সরকারের সহকারী কর কমিশনার দিপঙ্কর চন্দ্র সরকারের নাম। সরকারের উচ্চ পর্যায়ের এই কর্মকর্তা বিগত কয়েক বছর ধরে সহযোগীদের নিয়ে মেডিকেল ও ডেন্টাল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস করে আসছেন।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তার অফিস থেকেই জব্দ করেছে এক কোটি সাত লাখ টাকার চেক। আর সহযোগীদের কাছ থেকে জব্দ করা হয় তিন কোটি ৫০ লাখ ২৫ হাজার টাকার চেক। এছাড়াও কোচিং বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত থাকায় রাজধানীর আটটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৯৭ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে ‘শাস্তিমূলক’ ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে দুদক।

মাশরাফি বিন মর্তুজার সাফল্য
বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং আলোচিত ক্রিকেটার। এবার বছরজুড়ে পাদপ্রদীপের আলোয় ছিলেন রঙিন জার্সিতে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক। যদিও বছরের মার্চ-এপ্রিলে এসে শ্রীলঙ্কা সফরে হঠাৎ করে টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরের ঘোষণা দেন তিনি। সারাদেশে ‘মানি না’, ‘মানব না’- বলে ভক্তরা প্রতিবাদের ঝড় তুললেও মাশরাফি অনড়। তার পরিবর্তে টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক করা হয় সাকিব আল হাসানকে।

মাশরাফির নেতৃত্বেই আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে যায় বাংলাদেশ। যেখানে প্রথমবারেরমত বাংলাদেশ খেলে সেমিফাইনাল। মাশরাফির তুখোড় নেতৃত্ব আর দলের ক্রিকেটারদের দারুণ পারফরম্যান্স এই সাফল্য এনে দেয় বাংলাদেশকে। বিশেষ করে সাকিব আর মাহমুদউল্লার অসাধারণ পারফরম্যান্সে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পায় বাংলাদেশ।

সেই মাশরাফির বছরটা শেষ হলো সাফল্য দিয়েই। বিপিএলের পঞ্চম আসরের চারটিতেই শিরোপা উঠলো মাশরাফির হাতে! এবার রংপুর রাইডার্সকে বিপিএলের চ্যাম্পিয়নের মুকুট পরান তিনি। নিজের সাফল্যের মুকুটে যোগ করেন আরও একটি সোনালী পালক।

শাকিব খান-অপু বিশ্বাসের বিয়ে ও বিচ্ছেদ
বছরের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনার অন্যতম ছিল শাকিব খান এবং অপু বিশ্বাস জুটির বিয়ের খবর ও কয়েক মাস পরই বিচ্ছেদের ঘোষণা। একটি টিভি চ্যানেলে এ বছরের ১০ এপ্রিল উপস্থিত হয়ে শাকিবের সঙ্গে গোপরে বিয়ের কথা জানান অপু বিশ্বাস। এ সময় কোলে তাদের সন্তানও ছিল। এ নিয়ে তুমুল আলোড়ন ও বিতর্ক দেখা দিলে স্ত্রী-সন্তানকে মেন নেন শাকিব। তারপর থেকেই নিয়মিত আলোচনায় ছিলেন তারা। কিন্তু আলোচিত এ জুটির সম্পর্কের টানাপোড়েনের জের ধরে গত ২২ নভেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে অপুকে তালাকের নোটিশ পাঠান শাকিব। তবে শাকিব-অপুর বিচ্ছেদের বিষয়টি এখনও অমীমাংসিত।

সিদ্দিকুর রহমানের অন্ধত্ব ও চাকরি
পরীক্ষার ফলাফল ও তারিখ ঘোষণার দাবিতে আন্দোলনে নেমে পুলিশের টিয়ার শেলে দৃষ্টিশক্তি হারান তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যলয়ের সঙ্গে একীভূত হওয়া রাজধানীর সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার তারিখ চেয়ে শাহবাগে জমায়েত হন। তারা অনার্স শেষ বর্ষের ফলাফল ও তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষার সময় ঘোষণাসহ চারদফা দাবিতে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। একপর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এতে স্থায়ীভাবে দুই চোখ হারান সিদ্দিকুর রহমান। বিষয়টি নিয়ে দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

প্রথমে সিদ্দিকুরকে রাজধানীর জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতের চেন্নাইয়ে সরকারিভাবে পাঠানো হয়। অবশ্য চেন্নাইয়ের শঙ্কর নেত্রালয়ে সিদ্দিকুর রহমানের চোখ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে চিকিৎসক লিংগম গোপাল জানায়, অস্ত্রোপচারেও তার চোখে দেখার সম্ভাবনা নেই।

এরপর মানবিক দিক বিবেচনায় তাকে রাষ্ট্রীয় ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এসেনশিয়াল ড্রাগ কোম্পানি লিমিটেডে (ইডিসিএল) টেলিফোন অপারেটর পদে নিয়োগ দেয়া হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে কর্মরত রয়েছেন।

ইউএনও তারেক সালমান ও বঙ্গবন্ধুর ছবি
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ‘বিকৃত’ করে স্বাধীনতা দিবসের দাওয়াতপত্র ছাপানোর অভিযোগে বরগুনার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গাজী তারেক সালমানকে মামলাসহ হয়রানির ঘটনা প্রশাসনে ব্যাপক আলোড়ন তোলে এ বছর।

ইউএনওর বিরুদ্ধে মামলা করা আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। ইউএনওকে হয়রানির ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার জন্য গত ২৪ জুলাই বরিশালে জেলা প্রশাসক (ডিসি) গাজী মো. সাইফুজ্জামান ও বরগুনার ডিসি বশিরুল আলমকে ওএসডি করা হয়।
শেষে চলতি বছরের ৩ আগস্ট গাজী সালমান তারিককে বদলি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব করা হয়।

এফএইচএস/এসআর/এনএফ/আইআই