সুকুমার রায়ের মজার গল্প: টিয়াপাখীর বুদ্ধি

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৫০ পিএম, ১৩ জুন ২০২২

এক ফরাসি ভদ্রলোকের একটা কুকুর আর একটা টিয়াপাখি ছিল। কুকুরটাকে তিনি নানারকম খেলা আর কাজ শিখিয়ে ছিলেন, ‘বাইরে যাও’, ‘দোকানে যাও’, ‘খাবার আন’ বলে তিনি যখন যেমন হুকুম করতেন, কুকুরটা ঠিক মতন তার হুকুম তামিল করত।

টিয়াপাখিটা কিন্তু কিছু কাজ করতে শেখে নি। সে কেবল সবসময় বকর বকর করে কথা বলত আর কুকুরটার উপর সর্দারি করত। কুকুর বেচারা হয়তো ঘরের মধ্যে শুয়ে আছে হঠাৎ টিয়াপাখিটা চোখ পাকিয়ে ধমক দিয়ে বলল, ‘এইও বাইরে যাও’- কুকুরেরও হুকুম শুনে অভ্যাস। সে ভয়ে ভয়ে লেজ গুটিয়ে দরজার দিকে রওনা হত। তখন টিয়াপাখিটা ঠিক তার মনিবের মত শিস দিয়ে তাকে ডেকে আনত।

সেই ভদ্রলোকটি কুকুরটাকে প্রায়ই রুটিওয়ালার দোকানে কেক আনতে পাঠাতেন। কুকুরটাকে সবাই খুব ভালোভাবে চিনত সুতরাং সে টুকরি মুখে নিয়ে দোকানে আসলেই রুটিওয়ালা টুকরির মধ্যে কেক পুরে দিত আর তার মনিবের নামে হিসাব লিখে রাখত।

একদিন ভদ্রলোক হিসাব করতে গিয়ে দেখেন যে তার হিসাবের সঙ্গে দোকানের হিসাব মিলছে না! তিনি যতবার কুকুরটাকে পাঠিয়েছেন দোকানির হিসাবে তার চাইতেও বেশি লেখা হয়েছে! কয়েক দিন পর্যন্ত এর কারণ কিছু বোঝা গেল না।

তারপর তিনি একদিন দেখেন, কুকুরটা শুয়ে আছে এমন সময় টিয়াপাখিটা হঠাৎ বলে উঠলো, ‘টুকরি আন।’ কুকুরটা একটু উঠে টুকরি নিয়ে এলো। টিয়াপাখি বললো, ‘দোকানে যাও’।

কুকুর বেচারা ইতস্তত করতে লাগল, তাই দেখে সে আবার চিৎকার করে বললো, ‘এইও, দোকানে যাও’। কুকুর বেচারা আর কি করে? সে দোকানে গিয়ে দু' মিনিটের মধ্যে খাবার এনে পাখিটার সামনে রেখে লেজ নাড়তে লাগলো, ইচ্ছাটা সেও কিছু ভাগ পায়, কিন্তু টিয়াপাখি ‘বাইরে যাও’ বলে এক ধমক দিয়ে তাকে তাড়িয়ে, নিজেই সবটা খাবার খেতে লাগল।

তখন ভদ্রলোকটি বুঝতে পারলেন যে দোকানির হিসাবে কেন বেশি লেখা হয়।

লেখা: সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত

প্রিয় পাঠক, আপনিও অংশ নিতে পারেন আমাদের এ আয়োজনে। আপনার মজার (রম্য) গল্পটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়। লেখা মনোনীত হলেই যে কোনো শুক্রবার প্রকাশিত হবে।

কেএসকে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]