সপ্তাহের রসালাপ: রাজ্যে পাখির সংখ্যা কত?

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৩৭ এএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

একদিন বাদশাহ আকবর তার সব জ্ঞানীকে ডেকে জিজ্ঞাসা করলেন, ‘আজ আমি আপনাদের একটি প্রশ্ন করতে চাই। আমি জানতে চাই, আমাদের রাজ্যে কয়টি পাখি আছে। যিনি সঠিক উত্তর দেবেন, তাকে আমি এই হীরার মালা উপহার দেব।’

আকবরের কথা শুনে কিছু লোক বললেন তিন হাজার। কেউ বললেন চার হাজার। কোনো কোনো লোক সাত হাজার বললেন। এভাবে সবাই তাদের উত্তর বললেন।

সবারটা শুনে আকবর বললেন, ‘বীরবল, আপনি এখনও কিছু বলেননি। তখন বীরবল বললেন, ‘আমি এখন বলতে পারব না। আমার কিছুটা সময় দরকার। আমি আগামীকাল বলব।’ শুনে আকবর বললেন, ‘আচ্ছা, আপনাকে সময় দিলাম।’

তারপর সবাই যার যার বাড়িতে চলে গেলেন। বীরবলও রাতে ভাবছিলেন যে, ‘মহারাজা আকবরের কাছে আগামীকাল আমি কী বলব? আমি কি সেই হীরার মালা পাবো?’ দীর্ঘক্ষণ চিন্তা করার পর তিনি একটি ধারণা পেলেন এবং ঘুমিয়ে পড়লেন।

পরদিন মহারাজ আকবর বীরবলসহ সবাইকে ডেকে জিজ্ঞাসা করলেন, ‘বীরবল, আপনি খুঁজে পেয়েছেন? তাহলে সবাইকে বলুন আমার রাজ্যে কতটি পাখি আছে।’

বীরবল অত্যন্ত সাহসের সঙ্গে বললেন, ‘মহারাজ, পুরো রাজ্যে নয় হাজার নয়শ নিরানব্বইটি পাখি আছে।’ এটি শুনে আকবর সবাইকে রাজ্যের পাখি গণনা করতে বললেন।

বীরবল তখন হেসে বললেন, ‘মহারাজ, সবাই যখন পাখির কাছে যাবেন, তখন কিছু পাখি তাদের আত্মীয়ের কাছে চলে যেতে পারে। আবার কিছু পাখি তাদের আত্মীয়ের কাছে আসতে পারে। ফলে পাখির সংখ্যা বাড়তেও পারে, কমতেও পারে।’

মহারাজ আকবর এবার বীরবলের কথা শুনে খুশি হয়ে তার গলায় হীরার মালা পরিয়ে দিলেন।

লেখা: সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত

প্রিয় পাঠক, আপনিও অংশ নিতে পারেন আমাদের এ আয়োজনে। আপনার মজার (রম্য) গল্পটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়। লেখা মনোনীত হলেই যেকোনো শুক্রবার প্রকাশিত হবে।

এসইউ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]