বাউফলে কলেজছাত্রকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি পটুয়াখালী
প্রকাশিত: ০৫:১৭ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ০৬:০৭ পিএম, ২২ নভেম্বর ২০১৭
বাউফলে কলেজছাত্রকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার গোসিঙ্গা গ্রামে মোবাইল চুরির অভিযোগ এনে বাবু মৃধা (১৯) নামে এক কলেজছাত্রকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। ডাক্তার ইয়াকুব আলী ডিগ্রি কলেজের ওই ছাত্রকে নির্যাতনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। গত রোববার গোসিঙ্গা গ্রামের আফছারের গ্যারেজ এলাকায় এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের শিকার বাবু দাবি করেন, গত কয়েক দিন ধরে তিনি তার বাড়ির কাছে কুড়িয়ে পাওয়া একটি মোবাইল ব্যবহার করছিলেন। গত রোববার তার চাচাতো ভাই হৃদয়ের কাছে মোবাইলটি ফেরত দিয়েছেন। কিন্তু মোবাইল চুরির অভিযোগ এনে স্থানীয় প্রভাবশালী চুন্নু মৃধা ও মনির মৃধাসহ কয়েকজন তাকে শিকল দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করেন।

তবে অভিযুক্ত চুন্নু মিয়া বলেন, আমার কাছে জালাল মৃধার ছেলে হৃদয় জানায়, ওর হারিয়ে যাওয়া মোবাইল বাবু ব্যবহার করছে। আমি বাবুকে মোবাইল ফেরত দিতে বললে সে অস্বীকৃতি জানায়। স্থানীয় মেম্বার হাবিব মৃধার কাছে বিষয়টি জানালে তিনি সালিশের কথা বলেন। সালিশের কথা শুনে বাবু মিলন মৃধার কাছে মোবাইল চুরির কথা স্বীকার করে। পরে সকালে হৃদয়ের কাছে মোবাইলটি ফেরত দেয়। সালিশ না হওয়ায় আমি বাবুকে ভালো হতে বলে দুটি চড় মেরেছি। তবে তাকে গাছের সঙ্গে শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

এ বিষয়ে ১২ নং বাউফল ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. হাবিব মৃধা বলেন, আমার কাছে বাবুর চাচাতো ভাইয়েরা সালিশের কথা জানিয়েছিল। পরে বাবুর কাছ থেকে মোবাইল উদ্ধার হয়েছে। তাই কোনো সালিশি বৈঠক হয়নি।

বাউফল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, এমন কোনো ঘটনা আমার জানা নেই। তবে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মহিব্বুল্লাহ্ চৌধুরী/আরএআর/এমএস