ছাত্রদলের আহ্বায়ককে বয়কটের সিদ্ধান্ত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি বরগুনা
প্রকাশিত: ০১:০৯ পিএম, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ০১:১৩ পিএম, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭

বরগুনা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কে এম সফিকুজ্জামান মাহফুজকে ছাত্রদল থেকে বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। বোরবার বিকেলে বাংলাদেশ ছাত্রদল বরগুনা জেলা শাখার সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মুরাদুজ্জামান টিপন, যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আহসান হাবীব স্বপন এবং মঈনুল হাসান লিটন স্বাক্ষরিক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, সেনা সরকারের সময় বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়ার চরম দুর্দিনে দলের কার্যক্রম থেকে বরগুনা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কে এম সফিকুজ্জামান মাহফুজ নিজেকে সরিয়ে রাখেন। পরবর্তীতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবির আন্দোলনেও তিনি আন্দোলন থেকে নিজেকে সরিয়ে রেখে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীর সঙ্গে আঁতাত করেন। এর ফলে বাংলাদেশের মধ্যে একমাত্র বরগুনা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মাহফুজ কোনো ধরনের রাজনৈতিক মামলার শিকার হননি। অথচ যেসব ছাত্রদল নেতাকর্মীরা আন্দোলন করে একাধিক রাজনৈতিক মামলার শিকার হয়েছেন, দিনের পর দিন জেল খেটেছেন, পকেট কমিটি গঠন করে নির্যাতিত ও ত্যাগী সেসব নেতাকর্মীদের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংস করার পায়তারা করে আসছেন কে এম সফিকুজ্জামান মাহফুজ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, বরগুনা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কে এম সফিকুজ্জামান মাহফুজ বিগত দিনে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ না করে পদ বাগিয়ে নেন। এছাড়া তিনি দলের মধ্যে একাধিক উপ-দল সৃষ্টি করে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম দুর্বল করে দেন বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মুরাদুজ্জামান টিপন বলেন, বাংলাদেশে ছাত্রদলের এমন কোনো ইউনিট নেই, যে ইউনিটের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে একাধিক রাজনৈতিক মামলা নেই। এ ক্ষেত্রে মাহফুজ ব্যতিক্রম। গত ১০ বছরে তার বিরুদ্ধে কোনো রাজনৈতিক মামলা হয়নি। দলীয় কোনো প্রোগ্রামে অংশ না নিয়ে মাহফুজ আ.লীগ নেতাদের সঙ্গে আঁতাত করেন। এর ফলে তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা হয়নি। এছাড়াও বরগুনায় যেসব নেতাকর্মীরা একাধিকবার মামলা হামলার শিকার হয়েছেন, তাদেরও তিনি কখনও খোঁজ নেননি।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কে এম সফিকুজ্জামান মাহফুজ বলেন, বরগুনা জেলা ছাত্রদল একমাত্র আমার জন্য এখনও মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারে। আমি জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়কের দায়িত্ব পাবার পর এ পর্যন্ত যতগুলো আন্দোলন করা হয়েছে সবগুলোই আমার নেতৃত্বে।

তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমার এবং আমার দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্য একটি মহল আমার বিরুদ্ধে এ ধরনের অপপ্রচার চালাচ্ছে। বর্তমানে বরগুনা জেলা ছাত্রদলের অধিকাংশ নেতাকর্মী তার হাতেই তৈরি বলেও জানান তিনি।

সাইফুল ইসলাম মিরাজ/এমএএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :