রোগীকে আইসিইউতে রেখে পালালেন চিকিৎসক-নার্স

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)
প্রকাশিত: ০৭:২২ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৮

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় তাহমিনা কাজি (৩৪) নামের এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা তাহমিনার মৃত্যু হলে তাকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যান চিকিৎসক-নার্স এবং কর্মকর্তারা।

শুক্রবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। রোগীর মৃত্যুর খবর পেয়ে স্বজনরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠলে রোগীকে বেডে রেখেই পালিয়ে যান চিকিৎসক-নার্স এবং হাসপাতালের কর্মকর্তারা।

মৃত তাহমিনার দেবর ইমাম কাজি বলেন, দুপুর ১২টার দিকে অসুস্থবোধ করলে ভাবিকে সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়ের প্রো- অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসি।

পরে চিকিৎসক নাজমুল ও খান রিয়াজ মাহমুদ রোগীকে দেখতে চান। এ সময় নারী চিকিৎসক দিয়ে রোগী চিকিৎসা করাতে চান বলে তাদের জানানো হয়। পরে নারী চিকিৎসক নিশাত এসে রোগীকে দেখে দুটি ইনজেকশন দেন। ইনজেকশন পুশ করার ১০ মিনিট পরই রোগীর অবস্থা অবনতি হতে থাকে। একপর্যায়ে জরুরি বিভাগ থেকে রোগীকে আইসিইউতে পাঠানো হয়। আইসিইউতে নেয়ার কিছুক্ষণ পর চিকিৎসক এসে জানান রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

ইমাম কাজি বলেন, রোগীর মৃত্যুর খবর শুনে আত্মীয়-স্বজনরা হাসপাতালে বিক্ষোভ শুরু করে। বিক্ষোভের মুখে চিকিৎসক-নার্স এবং কর্মকর্তারা হাসপাতালে তালা মেরে পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

jagonews

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপক সালা উদ্দিন ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর বিষয়টি অস্বীকার করেন।

তিনি বলেন, পুলিশ এসে ওই রোগীর চিকিৎসা সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে গেছে। আমি এই মাত্র হাসপাতালে এসেছি। হাসপাতালের ব্যাপারে খারাপ কিছু লিখবেন না। আপনারা হাসপাতালে আসেন, আপনাদের সম্মানী দেব।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি আব্দুস সাত্তার টিটু বলেন, রোগীর স্বজনরা দাবি করছেন ভুল চিকিৎসায় রোগী মারা গেছে। থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি এই হাসপাতালে টাকার জন্য এক মৃত রোগীকে আটকে রাখা হয়। এর আগে এক প্রসূতির অপারেশন করার সময় নবজাতকের গাল কেটে ফেলার অভিযোগ রয়েছে।

হোসেন চিশতী সিপলু/এএম/আরআিইপি

আপনার মতামত লিখুন :