গুলিতে নিহত সুমন আনলিমা টেক্সটাইল লিমিটেডের সুইং অপারেটর

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি সাভার
প্রকাশিত: ০৭:৪১ পিএম, ০৮ জানুয়ারি ২০১৯

সাভারে দ্বিতীয় দফায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে এক শ্রমিক মারা গেছেন। মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে শিল্পাঞ্চলের উলাইল এলাকায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয় ওই শ্রমিক। এর আগে সকালে হেমায়েতপুর শিল্পাঞ্চলেও শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নিহত শ্রমিকের নাম সুমন মিয়া (২২)। তিনি শেরপুর জেলার শ্রীবদী উপজেলার কলাকান্দা গ্রামের আমের আলীর ছেলে। উলাইল শিল্পাঞ্চলের আনলিমা টেক্সটাইল লিমিটেডের সুইং অপারেটর হিসেবে কাজ করতেন তিনি।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার আমজাদ হোসেন জানান, মৃত অবস্থায় বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সুমন মিয়া নামের এক শ্রমিককে হাসপাতালে আনা হয়। বুকের বাম পার্শ্বে গুলিবিদ্ধ ছিলেন তিনি। ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ সাভার মডেল থানার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আনলিমা টেক্সটাইলের এক কর্মকর্তা নাম না প্রকাশ করার শর্তে এ প্রতিবেদককে জানান, সুমন মিয়া নামের ওই শ্রমিক দুপুরের খাবার বিরতিতে ফ্যাক্টরি থেকে বাসায় যান। ফেরার পথে তিনি শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে গুলিবিদ্ধ হন।

নিহত সুমন মিয়ার সহকর্মী আনলিমা টেক্সটাইলের শ্রমিক রিপন জানান, দুপুর আড়াইটার দিকে উলাইল এলাকায় স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের একটি কারখানার শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ বাধে। বাসা থেকে নিজ কারখানায় ফেরার পথে সুমন গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে পড়ে থাকে। পরে তাকে নিয়ে আমি হাসপাতালে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

তবে এ বিষয়ে পুলিশের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। শিল্পাঞ্চল পুলিশ-১ এর পরিচালক (পুলিশ সুপার) সানা সামিউর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

ঘোষিত বেতন-ভাতায় বৈষম্যের অভিযোগ তুলে সাভার শিল্পাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় মঙ্গলবার সকাল থেকে আন্দোলনে নামে পুলিশ। এর মধ্যে সকালে হেমায়েতপুর এলাকায় শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ওই এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। দুপুরেও উলাইল শিল্পাঞ্চলে পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়।

আল-মামুন/এমএএস/পিআর