টেস্টি স্যালাইন খেয়ে হাসপাতালে ৫ জন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মেহেরপুর
প্রকাশিত: ০৮:২৭ এএম, ০২ মে ২০১৯

মেহেরপুরের বাড়াদী কোরিয়ান ল্যাংগুয়েজ সেন্টারের চার ছাত্র ও এক শিক্ষক গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। টেস্টি স্যালাইন পান করার পর তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন বলে জানান অসুস্থদের কয়েকজন। বুধবার রাত সোয়া ১২টার দিকে ল্যাংগুয়েজ সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে।

অসুস্থরা হলেন- ল্যাংগুয়েজ সেন্টারের শিক্ষক মেহেরপুর সদর উপজেলার বর্শিবাড়ীয়া গ্রামের রুহুল আমিন (৩৭), আবাসিক ছাত্র মিরাজুল ইসলাম (২২), শিহাব সুমন (২৩), লিখন রাজ (২৪) ও শেখ ওয়াজ কুরুনী (২২)। চার ছাত্রের বাড়ি চুয়াডাঙ্গা শহরের তালতলা পাড়ায়।

রোগীর কাছে হাসপাতালে থাকা বারাদী সাংগঠনিক ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি এসআই রিংকু মাহমুদ ও ছাত্রলীগ সভাপতি আল মামুন জানান, প্রতিদিনের মতো ছাত্রদের কোরিয়ান ভাষা শেখাচ্ছিলেন শিক্ষক রুহুল আমিন। গরমে একটু স্বস্তির আশায় তারা টেস্টি স্যালাইন গুলিয়ে পান করেন। স্যালাইন পানি পান করেই শিক্ষক ও চার ছাত্র বমি করতে থাকেন। এক পর্যায়ে তাদের শরীর অবশ হয়ে যায় এবং নেশায় আছন্ন হয়ে পড়েন। পরে সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। মেহেরপুর থেকে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। সেই স্যালাইনগুলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

Meherpur-Saline-illness-news-pi

স্যালাইনের বিষয়ে তারা বলেন, বারাদী পুলিশ ক্যাম্পের সামনে আশাদুল ইসলামের মুদি দোকান থেকে বুধবার সন্ধ্যায় ‘ইউনিভার্সাল’ কোম্পানির এক বাক্স টেস্টি স্যালাইন কেনা হয়। স্যালাইনের প্যাকেটে ব্যবহারের মেয়াদ এখনো বেশ কিছুদিন রয়েছে। তাই স্যালাইনের মধ্যে কী এমন আছে তা নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা চলছে। ক্লান্তি দূর করতে শিক্ষক ও ছাত্ররা প্রায়ই টেস্টি স্যালাইন পান করেন। কিন্তু আগে কখনো এমন হয়নি।

মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের ইর্মাজেন্সি মেডিকেল অফিসার ডা. সাউদ কবির বলেন, তাদের চিকিৎসা চলছে। কী কারণে তারা অসুস্থ হয়ে পড়লেন তা এখনই বলা যাচ্ছে না।

মেহেরপুর সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা খাঁন বলেন, হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত করা হবে।

আসিফ ইকবাল/এফএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :