মা-মামির ঝগড়া থামাতে গিয়ে প্রাণ গেল ভাগনির

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মুন্সীগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৫:৫৬ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯
ফাইল ছবি

মায়ের সঙ্গে মামির ঝগড়া থামাতে গিয়ে কাঁচির আঘাতে তাসনিম আক্তার নিপা (১৭) নামে এক কলেজছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার বাহেরকুচি গ্রামে এই হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটেছে।

তাসনিম আক্তার নিপা উপজেলার কেবি ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন। বাবার নাম মো. দ্বীন ইসলাম, বাড়ি বাহেরকুচি গ্রামে।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে মা রোমেলা বেগম ও মামি রহিমা আক্তারের মধ্যে ঝগড়া হচ্ছিল। সেই ঝগড়া থামাতে যান কলেজছাত্রী নিপা। এ সময় মামির হাতে থাকা কাপড়কাটা কাঁচির আঘাতে গুরুতর আহত হন তিনি। এরপর প্রথমে তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল ও পরে ধানমন্ডি জেনারেল অ্যান্ড কিডনি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকৎসাধীন অবস্থায় বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে মারা যান তিনি।

সিরাজদীখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফরিদউদ্দিন জানান, পারিবারিক বিরোধের জের ধরে কলেজছাত্রী নিপার মা ও মামির মধ্যে ঝগড়া বাধে। তা থামাতে এগিয়ে যায় সে। এক পর্যায়ে হাতে থাকা কাপড় কাটার কাঁচি দিয়ে মামি তার পিঠে আঘাত করলে গুরুতর জখম হন নিপা।

এরপর প্রথমে তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে প্রথমে ঢামেক হাসপাতাল ও পরে ধানমন্ডি জেনারেল অ্যান্ড কিডনি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে মৃত্যু হয় তার। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে মরদেহ নিজ বাড়িতে আনা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় তার বাবা মো. দ্বীন ইসলাম বাদী হয়ে মামা আবু তাহের হাওলাদার ও মামি রহিমা আক্তারসহ ৫ জনকে অভিযুক্ত করে সিরাজদীখান থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

ভবতোষ চৌধুরী নুপুর/এমএমজেড/জেআইএম