টানা বৃষ্টিতে ঘরে ঢুকছে পানি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৪:৪১ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৯

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে টানা তিনদিন ধরে লক্ষ্মীপুরের সর্বত্র বৃষ্টি হচ্ছে। এতে আশপাশের ডোবা-জলাশয় পানিতে ডুবে লক্ষ্মীপুর পৌরসভায় জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।

এ অবস্থায় পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সমসেরাবাদ এলাকার হায়দার আলী সড়কের অর্ধশতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। হাঁটুপানি ডিঙিয়ে ঘর থেকে বের হচ্ছেন এসব পরিবারের সদস্যরা।

Lakshmipur-rain

জানা যায়, সর্বশেষ ২০০২ সালে সমসেরাবাদ এলাকার হায়দার আলী সড়কটি পাকা করা হয়। এরপর থেকে ওই সড়ক ভেঙে গেলেও মেরামত করা হয়নি। নাজুক সড়কটিতে একটি রিকশাও ঢুকতে পারে না। বৃষ্টি হলেই সড়কে হাঁটুপানি জমে যায়। পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও তা অপরিকল্পিত। প্রায় এক বছর আগে ড্রেন পরিষ্কার করা হয়েছে। সড়কটি নিচু হওয়ায় ড্রেনের পানিতেই সড়ক পুকুরে পরিণত হয়। এতে সড়কের পাশের কাঁচাঘরগুলোতেও পানিতে তলিয়ে যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এই সড়কে লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের প্রায় ১০ জন শিক্ষক ভাড়া বাসায় থাকেন। সেই সুবাদে প্রতিদিনই শতাধিক শিক্ষার্থী সড়কটি ব্যবহার করেন। স্থানীয় এক ব্যাংক কর্মকর্তার ব্যক্তিগত উদ্যোগে সড়কে ইট দিয়ে সাময়িকভাবে চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানিতে গর্ত হয়ে সেটি এখন বিপজ্জনক অবস্থায় দাঁড়িয়েছে।

Lakshmipur-rain

স্থানীয়দের অভিযোগ, পৌরসভার অন্য কোথাও এমন খারপ সড়ক নেই। ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কোথাও এমন সড়ক চোখে পড়ে না। হায়দার আলী সড়কটি প্রায় ১৮ বছর আগে নির্মাণ করা হয়। ভেঙে গেলেও কখনো মেরামত করা হয়নি। সড়কটি করে দেয়ার আশ্বাস দিয়ে জনপ্রতিনিধিরা তা ভুলে গেছেন। নির্বাচন শেষ হলে তাদের খোঁজ থাকে না।

লক্ষ্মীপুর পৌরসভার কাউন্সিলর জাহিদুজ্জামান চৌধুরী রাসেল বলেন, আগামী ডিসেম্বরে সড়কটির কাজ শুরু হবে। বৃষ্টিতে এখন কোনো কিছু করা যাবে না। তবে বৃষ্টি শেষ হলে ড্রেন পরিষ্কারের জন্য বলা হবে।

কাজল কায়েস/এএম/পিআর