লিবিয়ায় ছেলে খুন, এখানে বিলাপ করছেন সর্বস্বান্ত বাবা-মা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাগুরা
প্রকাশিত: ০৩:১২ পিএম, ০৩ জুন ২০২০

লিবিয়ার বেনগাজী থেকে মরুভূমি পাড়ি দিয়ে ত্রিপলি যাওয়ার পথে মানবপাচারকারীদের গুলিতে নিহত হন মাগুরার লাল চাঁদ। তার বাড়ি মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নারায়ণপুর গ্রামে। তার মৃত্যু খবর শোনার পর থেকে পাগল প্রায় পরিবারের সদস্যরা। একদিকে ছেলে হারানোর শোক অন্যদিকে মাথায় ধার দেনার বোঝা।

লাল চাঁদের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, তার মা-বাবা পুত্রশোকে বিলাপ করছেন। তাদের চারপাশ ঘিরে আছে গ্রামবাসী। এ সময় গ্রামবাসীরা জানান একই এলাকার তারিকুল ইসলাম ও লাল চাঁদ ঢাকায় টাইলসের কাজের ঠিকাদার হাজি কামালের মাধ্যমে লিবিয়া যান। তবে হাজি কামালকে কেউ চেনন না।

লাল চাঁদের বাবা কৃষক ইউসুফ শেখ বলেন, ভাগ্য বদলের আশায় ছেলেকে তিনি লিবিয়ায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন। গরু বিক্রি করে, ঋণ নিয়ে এবং চাষের জমি বন্ধক রেখে পাঁচ লাখ টাকা জোগাড় করে স্থানীয় এক দালালের হাতে তুলে দেন। ৯ মাস আগে লিবিয়ার উদ্দেশে বাড়ি থেকে রওনা হন লাল চাঁদ।

লাল চাঁদের ছোট ভাই নাসিরুল বলেন, চার ভাই তিন বোনের মধ্যে লাল চাঁদ ছিল সবার বড়। বাবা অনেক কষ্ট করে তিন বোনের বিয়ে দিলেও ধার দেনা করে সংসার চালাতে হতো বাবাকে। এই অবস্থায় বড় ভাই বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে তিনি অনেক কষ্ট করে টাকা জোগাড় করে লিবিয়ায় পাঠান। কিন্তু গত ৯ মাসে লাল চাঁদ একটি টাকাও বাড়িতে পাঠাতে পারেনি। ভাই আর নেই, সুদের পরিমাণও দিন দিন বেড়েই চলেছে। আমরা পথে বসে গেলাম।

এ বিষয়ে মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, ইতোমধ্যে নিহতের বাড়ি পরিদর্শন করা হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরাফাত হোসেন/এফএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]