জামালপুরে আর পানি না বাড়লেও ভোগান্তি বেড়েছে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি জামালপুর
প্রকাশিত: ০১:৪২ পিএম, ০৩ জুলাই ২০২০

যমুনা নদীর পানি কমতে শুরু করলেও বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। জামালপুরের বন্যা কবলিত এলাকায় মানুষের ভোগান্তি পৌঁছেছে চরমে। নতুন করে কোনো অঞ্চল প্লাবিত না হলেও জেলার ৪ লাখ মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে। বিশুদ্ধ পানি ও খাদ্য সংকটে পড়েছে মানুষ। বন্যার পানিতে ডুবে মারা গেছে ৮ জন। নিখোঁজ রয়েছে একজন।

Jamalpur-Flood

গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি ৩ সেন্টিমিটার কমে শুক্রবার সকালে বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ৭৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যমুনার পানি স্থির থেকে পৌরসভাগুলোসহ ৪৩টি ইউনিয়ন বন্যার পানিতে নিমজ্জিত আছে। পানিতে ডুবে গেছে বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ ও বসতবাড়ি। মানুষ বাঁধে সড়কে কিংবা উঁচু কোনো স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। বিশেষ করে শিশু ও বয়স্ক মানুষগুলো সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছে। প্রায় সময়ই পানিতে পড়ে শিশু মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। সেইসঙ্গে দেখা গেছে শিশু খাদ্যের অভাব।

যোগাযোগের অভাবে কেউ কোথাও বের হতে না পারায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে অসংখ্য লোক। এর মধ্যে আবার করোনার চিন্তা মাথার উপর বাড়তি বোঝা হয়ে আছে বানভাসীদের। ত্রাণের জন্য বানভাসী অসহায় মানুষদের হাহাকার চোখে পড়ার মতো। বন্যায় পানিবন্দি মানুষদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের কার্যক্রম অধিকাংশ জায়গায় শুরুই হয়নি।

Jamalpur-Flood-1

সরকারি তথ্যমতে জামালপুরে বন্যার পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৮৫ হাজার ২শ পরিবার। পানিবন্দি আছে ৩ লাখ ৫৯ হাজার ৪২ জন মানুষ।

এফএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]