লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, বিক্ষোভের মুখে টাকা ফেরত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চাঁদপুর
প্রকাশিত: ০৪:৫৪ পিএম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০

চাঁদপুর-ঢাকা নৌ-পথে কোনো রকম ঘোষণা ছাড়া লঞ্চ ভাড়া বৃদ্ধি করায় লঞ্চে যাতায়াতকারী যাত্রীদের মাঝে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

লঞ্চের টিকেটে পূর্বের ভাড়ার গায়ে সিল দিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। ফলে যাত্রীদের সঙ্গে লঞ্চ স্টাফদের এ অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে প্রতিনিয়ত কথা কাটিকাটি হচ্ছে।

চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে এমভি সোনার তরী-৩ লঞ্চটি বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসে। লঞ্চে যাতায়াতকারী যাত্রীদের কাছে নির্দিষ্ট ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করায় রাত ৯টায় চাঁদপুর লঞ্চ ঘাটে সোনার তরী-৩ লঞ্চে কাউন্টারের সামনে যাত্রীরা বিক্ষোভ করে। পরে যাত্রীদের চাপের মুখে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হন বলে জানান লঞ্চে যাতায়াতকারী কয়েকজন যাত্রী।

চাঁদপুর-ঢাকা নৌ-পথে লঞ্চে যাতায়াতকারী কয়েকজন যাত্রী জানান, লঞ্চ মালিক কর্তৃপক্ষ পূর্বের চেয়ে ভাড়া বাড়িয়ে দিয়ে এখন যাত্রীদের কাছ থেকে নিজেদের ইচ্ছেমত টাকা আদায় করছে। দেশান্তর নামে সৌখিন টিকেট ২৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৮০ টাকা করেছে। এছাড়া দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণিসহ সকল ডেকে টাকা বাড়িয়ে দিয়েছে।

যাত্রীরা আরও জানায়, সরকারের নির্দেশনা ছাড়া কিংবা পূর্ব কোনো ঘোষণা ছাড়াই এভাবে আমাদের কাছ থেকে ভাড়া আদায় করা তা একেবারেই অনিয়ম। এছাড়া কোনো কোনো লঞ্চের স্টাফরা আমাদের সাথে অনেক খারাপ আচরণ করে থাকেন। লঞ্চে যাতায়াত করতে গিয়ে টিকিট কাটার সময় যাত্রীরা চরম হয়রানির শিকার হচ্ছেন।

chandpur

লঞ্চের স্টাফরা যখন নির্দিষ্ট ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া কাটছেন তখন তা নিয়ে যাত্রী এবং স্টাফদের সাথে অনেক বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়।

লঞ্চের ভাড়া অতিরিক্ত নেয়ার কথা স্বীকার করে লঞ্চ মালিক প্রতিনিধি বিপ্লব সরকার বলেন, কিছু কিছু লঞ্চে এ কজটি করছে। তবে সরকার ১৫% ভাড়া বৃদ্ধি করেছে তা এখনও বলবত আছে। যা লঞ্চ যাত্রীদের অনেকে জানে না। এছাড়া লঞ্চের টিকেটে পূর্বের ভাড়ার গায়ে সিল দিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। ফলে যাত্রীদের সাথে লঞ্চ স্টাফদের এ অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে প্রতিনিয়ত কথা কাটিকাটি হচ্ছে।

এ বিষয়ে যাত্রীরা জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সহযোগিতা কামনা করেছেন

এমএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]