অভিভাবকহীন কচুয়া উপজেলা আ.লীগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চাঁদপুর
প্রকাশিত: ০১:৩৯ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ প্রায় এক বছর অভিভাবক শূন্য অবস্থায় রয়েছে। এক মামলায় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডের ওপর স্থিতাবস্থা জারি করে আদেশ দেন আদালত। এরপর থেকেই বন্ধ আছে কমিটির সাংগঠনিক কার্যক্রম। প্রধান দুই সাংগঠনিক অভিভাবক না থাকায় দলীয় কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এতে স্থানীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দিয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত থাকার কারণে ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যক্রমও ঝিমিয়ে রয়েছে। আগামী ২০ অক্টোবর কচুয়া উপজেলার ১ নম্বর সাচার ইউনিয়ন ও ১০ নম্বর গোহট উত্তর ইউনিয়নে উপ-নির্বাচনের অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন সামনে রেখে এখন নেতাকর্মীরাও আছেন দ্বিধাদ্বন্দ্বে। অভিভাবক না থাকায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা পড়েছেন নেতৃত্ব সংকটে।

দলীয় সূত্র জানায়, ১ নম্বর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মিজানুর রহমান, ৩ নম্বর বিতারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হারুনুর রশিদ এবং ১২ নম্বর আশরাফপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল মাওলা হেলাল কচুয়া সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে ২০১৯ সালের ২৪ নভেম্বর একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় বিবাদী করা হয় কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আইয়ুব আলী পাটওয়ারী এবং কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন সোহাগ।

আদালত ২৭ নভেম্বর মামলাটি আমলে নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের সকল কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশ দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা বলেন, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি দিয়েছেন। টাকার বিনিময়ে এসব পকেট কমিটি দেয়া হয়েছে। এ দুজনই আওয়ামী লীগের সোনালী অর্জনকে ধূলিসাৎ করতে হীন চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। এমনকি দলীয় সিদ্ধান্ত ছাড়াও বিভিন্ন সময়ের নির্বাচনে প্রকাশ্যে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন।

সাংগঠনিক তৎপরতা বাড়াতে দ্রুত সৎ, আদর্শবান ও যোগ্য নেতাদের সমন্বয়ে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠনের দাবি জানান তারা।

এ ব্যাপারে কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন সোহাগের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল জানান, কচুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে একটি মামলা চলমান রয়েছে। এই মামলা অবশ্যই নিষ্পত্তি করা দরকার। তিনি বলেন, আমরা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে দ্রুত সাংগঠনিক তৎপরতা বাড়াতে উদ্যোগ নেব।

এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]