একশ কেজি চালের খিচুড়ি রেঁধে খাওয়ালেন আ.লীগ প্রার্থী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ১১:২৫ এএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

একশ কেজি চাল ও এক মণ মুরগির মাংসে রান্না করা খিচুড়ি দিয়ে আপ্যায়িত হলেন ৫-৬শ ভোটার। শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে এ ভুরিভোজের আয়োজন করেন পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার মন্ডুতোষ ইউনিয়ন পরিষদের আসন্ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আফছার আলী মাস্টার। তিনি এ ইউনিয়ন পরিষদে আগামী ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী। ভাইয়ের চেহলাম উপলক্ষে ওই আয়োজন করেছেন বলে দাবি করলেও সমালোচনার মুখে পড়েছেন এই প্রার্থী।

অন্য প্রার্থীদের অভিযোগ, তিনি নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন। এ ঘটনায় উপজেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগ করেও কোনো সুফল পাননি তারা।

দলীয় লোকজন ও স্থানীয়রা জানান, আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আফছার আলী মাস্টার নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা উপলক্ষে এলাকাবাসী ও সক্রিয় সমর্থকদের শনিবার রাতে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। ভাঙ্গুড়া উপজেলার মন্ডুতোষ গ্রামে তার বাড়িতে রাতে আলোচনা সভা শেষে ভুরিভোজের আয়োজন করা হয়।

শনিবার রাতে আফছার আলী মাস্টারের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, তার কিছু কর্মী আড়াই মণ (১শ কেজি) চালে এক মণ মুরগির মাংস মিশিয়ে খিচুড়ি রান্নায় ব্যস্ত।

রান্নার বাবুর্চি জানান, এই খাবার ৫-৬শ লোককে খাওয়ানো যাবে। এ সময় স্থানীয় এক সংবাদকর্মী ছবি তুলতে গেলে তাতে বাধা দেন চেয়ারম্যান প্রার্থীর এক ভাতিজা।

পরে চেয়ারম্যান প্রার্থী আফছার আলী মাস্টার এসে জানান, চার বছর আগে তার এক ভাই মারা যান। সেই ভাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে এ আয়োজন। এটা নির্বাচনী কোনো মিটিং নয়।

এদিকে আলোচনা সভায় আসা বেশ কিছু লোকজন জানান, চেয়ারম্যান প্রার্থী আফছার আলী মাস্টার নির্বাচন উপলক্ষে মতবিনিময় সভা করার জন্য তাদের আমন্ত্রনণ জানিয়েছিলেন। তারা আলোচনা সভা উপলক্ষেই এসেছেন বলে জানান।

এ ব্যাপারে মন্ডুতোষ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নুর ইসলাম মিন্টু বলেন, তিনি (আফছার আলী মাস্টার) মিথ্যা বলেছেন। কেউ কখনো দেখেছেন রাতে মৃত্যুবার্ষিকীর আয়োজন করা হয়?

তিনি আরও বলেন, এত বছরে কোনোদিন তিনি তার ভাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকী পালন করলেন না। নির্বাচনের আগে তার এমন কথা মনে উদয় হলো! তিনি নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন। তিনিসহ অন্যরা এ ঘটনায় উপজেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগও করেছেন বলে জানান।

উপজেলা নির্বাচন ও রিটার্নিং অফিসার রোকসানা নাসরিন জানান, বিষয়টি তাদের জানা নেই। খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেবেন।

উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশনের তফশিল অনুযায়ী আগামী ২০ অক্টোবর পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার মন্ডুতোষ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩ অক্টোবর এবং প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ৪ অক্টোবর। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন- আফসার আলী (আওয়ামী লীগ), নুর ইসলাম মিন্টু (স্বতন্ত্র), জাহাঙ্গীর হোসেন (স্বতন্ত্র), মো. আকরাম হোসেন মাস্টার (বিএনপি) ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ (স্বতন্ত্র)। এছাড়া মেম্বার পদে নারীদের জন্য সংরক্ষিত পদে ৮ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৩১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

এফএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]