যাত্রী নিয়ে ডুবোচরে আটকে গেল লঞ্চ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মুন্সিগঞ্জ
প্রকাশিত: ০২:৫৮ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০২০

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ১৭০ জন যাত্রী নিয়ে এমভি মালেক দরবেশ-১ নামে একটি লঞ্চ ডুবোচরে আটকে গেছে। শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে শিমুলিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া ফারজানা-১০ নামে অপর একটি লঞ্চ ও স্পিড বোটের মাধ্যমে আটকে পড়া লঞ্চের যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দেয়া হয়।

বিআইডব্লিউটিএ’র শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী পরিচালক ট্রাফিক (লঞ্চ) মো. শাহদাত হোসেন জানান, শিমুলিয়া ঘাট থেকে ১৭০ জন যাত্রী নিয়ে কাঁঠালবাড়ি ঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া এমভি মালেক দরবেশ-১ লঞ্চটি লৌহজং চ্যানেল দিয়ে যাওয়ার পথে ভুলবশত কিছুটা বাম দিকে ঢুকে পড়ে। এ সময় লঞ্চটি নাব্য সঙ্কটে ডুবোচরে আটকে যায়।

খবর পেয়ে পরে শিমুলিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া ফারজানা-১০ নামে অপর একটি ও বিআইডব্লিউটিএ’র নিজস্ব স্পিড বোটের মাধ্যমে আটকে পড়া লঞ্চের যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দেয়া হয়।

তবে কোস্টগার্ড জানায়, শিমুলিয়া ঘাট থেকে ৩০০ যাত্রী নিয়ে এমভি মালেক দরবেশ-১ নামে লঞ্চটি কাঁঠালবাড়ি ঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। সকাল পৌনে ৯টার দিকে লঞ্চটি যখন পদ্মা সেতুর ২৫ নং পিলারের কাছ দিয়ে যাচ্ছিল তখন নাব্য সঙ্কটে লঞ্চটি পদ্মার তলদেশে ঠেকে কাত হয়ে ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়। এ সময় আতঙ্কিত হয়ে লঞ্চ যাত্রীরা কান্নাকাটি শুরু করে।

খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড পদ্মা সেতু কম্পজিট স্টেশনের সদস্যা দ্রুত সেখানে পৌঁছায় এবং যাত্রীদের উদ্ধার করে অন্য লঞ্চ ও ট্রলারে তুলে দেয়। এতে কেউ হতাহত হয়নি।

ভবতোষ চৌধুরী নুপুর/আরএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]