জামাইকে পিটিয়ে মেরে ফেলল শ্বশুরবাড়ির লোকজন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ০৫:৫৫ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০২০

পাবনার সুজানগরে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের পিটুনিতে রাজন হোসেন (৪৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। রোববার (১৮ অক্টোবর) দিবাগত রাতে সুজানগর উপজেলার মধুপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রাজন পাবনা সদর উপজেলার বাংলাবাজার মহল্লার আশরাফ আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, রোববার রাত ৮টার দিকে রাজন তার শ্বশুরবাড়ি মধুপুর আসেন। সেখানে তার স্ত্রী কামরুন্নাহার আগেই বেড়াতে গিয়েছিলেন। রাত ১১টার দিকে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রী কামরুন্নাহারের সঙ্গে রাজনের প্রচণ্ড ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে রাজন তার স্ত্রীকে মারধর করেন।

এতে শ্বশুরবাড়ির লোকজন ক্ষুদ্ধ হন। রাজনের শ্যালক এবং অন্যরা মিলে তাকে পাল্টা মারধর করেন। এতে রাজন জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। অবস্থা বেগতিক দেখে শ্বশুর কাইয়ুম খান এবং শ্যালক আব্দুর রাজ্জাক রাজনকে সোমবার (১৯ অক্টোবর) ভোর ৫টার দিকে একটি ভ্যান যোগে সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। জরুরি বিভাগে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক রাজনকে দেখতে আসার আগেই শ্বশুর কাইয়ুম খান এবং শ্যালক আব্দুর রাজ্জাক পালিয়ে যান।

সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সেলিম মোরশেদ জানান, ওই যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। হাসপাতালে আনার অনেক আগেই ওই যুবক মারা গেছেন।

সুজানগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুদ্দোজা জানান, পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একই গ্রামের ভ্যান চালক শামীমকে (৩০) আটক করেছে।

পাবনার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সুজানগর সার্কেল) ফরহাদ হোসেন বলেন, এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মারধর করার ফলেই ওই ব্যক্তি মারা গেছেন। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।

আরএআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]