রিকশাচালকের সততা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চাঁদপুর
প্রকাশিত: ০৭:৪৯ পিএম, ২৬ নভেম্বর ২০২০

রিকশায় ভুল করে মোবাইল ফোনটি ফেলে গিয়েছিলেন এক যাত্রী। পরে ওই ফোন মালিককে ফেরত দিয়ে সততার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন নয়ন শেখ নামের এক হতদরিদ্র রিকশাচালক।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) চাঁদপুর সদরের লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে নয়ন শেখের রিকশায় ওঠেন চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম আহসান উল্লাহ। তিনি রিকশা থেকে নেমে ভাড়া দেয়ার সময় ভুলে হাতে থাকা মোবাইল ফোনটি রিকশার সিটে রেখে দেন এবং প্রেস ক্লাবের মিটিংয়ে চলে যান। ১০ মিনিট পর তিনি বুঝতে পারেন মোবাইল ফোনটি সঙ্গে নেই। সঙ্গে সঙ্গে তিনি খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। কিছুক্ষণ পর তিনি বুঝতে পারেন মোবাইল ফোনটি রিকশার সিটে ফেলে এসেছেন। এরপরই রিকশাচালকের খোঁজ শুরু করেন।

আহসান উল্লাহ মোবাইলে কল দিয়ে দেখেন রিং হচ্ছে কিন্তু অপরপ্রান্ত থেকে কেউ রিসিভ করছেন না। এভাবে অনেকবার কল করার পর অবশেষে দুপুরে অপর প্রান্ত থেকে রিকশাচালক নিজেই ফোন রিসিভ করেন। তিনি ঠিকানা জানিয়ে মোবাইল আনতে তার বাড়িতে যাওয়ার জন্য বলেন।

বিকেল ৩টার দিকে চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম আহসান উল্লাহ এবং সাংস্কৃতিক সম্পাদক এ কে আজাদ রিকশাচালক নয়ন শেখের বাড়ি যান। তখন নয়ন শেখ হারিয়ে যাওয়া মোবাইল সেটটি তাদের হাতে তুলে দেন।

এ সময় নয়ন শেখের সততায় উপস্থিত সবাই মুগ্ধ হন এবং তাকে বখশিশ দেয়া হয়। হতদরিদ্র রিকশাচালক নয়ন শেখ বখশিশ পেয়ে খুশি হন। মোবাইল ফোনটি ফেরত দিতে পেরে অত্যন্ত খুশি বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এ এইচ এম আহসান উল্লাহ বলেন, ‘আমরা শিক্ষিতরাই অনেক সময় লোভী হয়ে যাই। কিন্তু নয়ন শেখের পুঁথিগত শিক্ষার অভাব থাকলেও সুশিক্ষার আলোয় আলোকিত তিনি। একজন হতদরিদ্র রিকশাচালক হয়েও সততার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। এটা অবশ্যই সবার জন্য শিক্ষণীয়। ঘটনাটি সমাজের জন্য সততার একটি মেসেজস্বরূপ।’

নজরুল ইসলাম আতিক/এসআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]