রাঙ্গামাটিতে হত্যা মামলায় চেয়ারম্যান-মেম্বার গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাঙ্গামাটি
প্রকাশিত: ০৯:১৮ পিএম, ২৭ নভেম্বর ২০২০
গ্রেফতার ইউপি চেয়ারম্যান খ্যাইসা অং মারমা

রাঙ্গামাটিতে হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হিসেবে ইউপি চেয়ারম্যান ও এক মেম্বারকে গ্রেফতার করেছে নিরাপত্তা বাহিনী। তারা হলেন- কাপ্তাই উপজেলার চিৎমরম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খ্যাইসা অং মারমা (৫৫) এবং একই ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সিংথোয়াই মারমা (৫০)। শুক্রবার সন্ধ্যায় কাপ্তাই থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এর মধ্যে ইউপি চেয়ারম্যান খ্যাইসা অং মারমা উপজেলার চন্দ্রঘোনা থানাধীন উজানছড়ি এলাকার মৃত মংবা মারমার ছেলে। ইউপি সদস্য সিংথোয়াই মারমা উপজেলার চন্দ্রঘোনা থানাধীন চংড়াছড়ি পূর্বপাড়ার খিজা মারমার ছেলে।

গুলিতে নিহত তুইনুমং মারমার ভাই মংক্যচিং মারমা বলেন, আমার ভাইকে হত্যার ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা করেন মা। ওই মামলায় এজাহারভুক্ত দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানতে পেরেছি। আমরা একই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে জড়িত অন্য আসামিদের গ্রেফতারের দাবি জানাই।

রাজস্থলী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফজল আহাম্মদ খান বলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা চিৎমরম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও এক ইউপি সদস্যকে গ্রেফতার করেছেন। তাদের পুলিশের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

২০ নভেস্বর রাঙ্গামাটির রাজস্থলী উপজেলার বাসিন্দা তুইনুমং মারমাকে গুলি করে গুরুতর আহত করে সন্ত্রাসীরা। পরদিন ২১ নভেম্বর তার পরিবারের সদস্যরা সকালে তাকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিলে ২২ নভেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এ ঘটনায় সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) নেতাকর্মীদের দায়ী করে ২৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ১০-১৫ জনকে আসামি করে মামলা করেন নিহতের মা। ওই মামলায় এ দুই জনপ্রতিনিধিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

শংকর হোড়/এএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]