ব্রিজ দেখাতে এনে কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণ, ২ যুবক আটক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লালমনিরহাট
প্রকাশিত: ০৯:০৬ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২১

লালমনিরহাট সদর উপজেলার তিস্তা টোলপ্লাজা এলাকায় এক কিশোরীকে (১৬) দলবেঁধে ধর্ষণের অভিযোগে দুই যুবককে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার গোকুন্ডা ইউনিয়নের পূর্ব দালালপাড়া তিস্তা টোলপ্লাজা আফজালনগর এলাকার একটি গোডাউনে এ ঘটনা ঘটে।

আটকরা হলেন- কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঙা ইউনিয়নের পশ্চিম দেবোত্তর এলাকার ত্রিপদ রায়ের ছেলে রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী নির্মল চন্দ্র রায় (২৮) এবং লালমনিরহাট সদর উপজেলার গোকুন্ডা ইউনিয়নের পূর্ব দালালপাড়া তিস্তা টোলপ্লাজা আফজালনগর এলাকার তৈয়ব আলীর ছেলে আতিকুল ইসলাম (২৫)।

পুলিশ জানায়, ওই কিশোরীকে নির্মল চন্দ্র রায় নামে এক যুবক তিস্তা ব্রিজ দেখানোর কথা বলে মোবাইল ফোনে ডেকে আনেন। নির্মল ও ভুক্তভোগী কিশোরীর বাড়ি একই এলাকায়।

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহা আলম জানান, তিস্তা টোলপ্লাজা আফজালনগর এলাকায় এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে— এক ক্ষুদেবার্তার মাধ্যমে এমন খবর পেয়ে তিস্তা টোলপ্লাজা পুলিশ চেকপোস্টে দায়িত্বরত এসআই নুর আলমকে জানান তিনি। তাৎক্ষণিকভাবে ওই পুলিশ অফিসার দুই যুবককে আটক করেন এবং ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তিস্তা টোলপ্লাজা আফজালনগর এলাকার সেকেন্দার আলীর ছেলে রিপনের গোডাউনে ওই কিশোরীকে ডেকে নিয়ে গিয়ে গণর্ধষণ করেন নির্মল চন্দ্র ও তার বন্ধু আতিকুল ইসলাম।

তিনি আরও জানান, এ সময় ওই কিশোরীর কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হয়েছে। ওই কিশোরীর পরিবারের লোকজনকে ডেকেছি। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ সার্কেল) মারুফা জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘আমি ভিকটিমের সাথে কথা বলেছি। এছাড়া স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

রবিউল হাসান/এমএসএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]