বাবার বিরুদ্ধে ছেলে অপহরণের অভিযোগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নড়াইল
প্রকাশিত: ০৬:৩৮ পিএম, ১৯ জানুয়ারি ২০২১

নড়াইলে বাবার বিরুদ্ধে ছেলে অপহরণের অভিযোগ করেছেন গায়ত্রী রাণী সূতার নামে এক নারী। পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী দীপংকর মজুমদার নবম শ্রেণি পড়ুয়া সুপ্ত মজুমদারকে অপহরণ করেছে বলে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন তিনি।

গত বুধবার (১৩ জানুয়ারি) ছেলে সুপ্ত মজুমদার সারাদিন বাসায় ছিল। দুপুরের দিকে বাসা থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি বলেন তিনি।

গায়ত্রী রাণী সূতার বলেন, পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) একটি প্রকল্পে নড়াইলে কর্মরত রয়েছেন তিনি। যার কারণে নবম শেণি পড়ুয়া সুপ্ত ও অষ্টম শ্রেণিতে পড়া মেয়ে দীপাকে নিয়ে শহরের আলাদাতপুর এলাকায় ভাড়ায় থাকেন।

জানা গেছে, ২০০৪ সালে বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ থানার ভরপাশা গ্রামের মাখনলাল সূতারের মেয়ে গায়ত্রীর সঙ্গে একই জেলার রুনশী গ্রামের মৃত মহারাজ মজুমদারের ছেলে দীপংকর মজুমদারের বিবাহ হয়।

গায়ত্রী অভিযোগ করেন, তাদের ঘরে সুপ্ত এবং দীপার জন্ম হওয়ার ছয় বছরের মাথায় স্বামী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করলে স্বামী তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। টাকা না দেয়া ও বিভিন্ন সময় স্বামীর অনৈতিক সম্পর্কের প্রতিবাদ করায় ২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারিতে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

পরবর্তীতে দুই সন্তানকে নিজ হেফাজতে লালন-পালন করতে বরিশাল নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা করেন এবং আদালতের রায়ের মাধ্যমে ২০১৬ সালের ২৬ ডিসেম্বর নাবালক সন্তানদের নিজ হেফাজতে নেন। পরে পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশনের মাঠকর্মী হিসেবে নড়াইলে যোগদান করে সেখানে অবস্থান করছেন।

এদিকে গত ৩১ জানুয়ারি গায়ত্রী তার এবং দুই সন্তানের খাওয়া, লেখাপড়া ও চিকিৎসার খরচ পেতে নড়াইল সদর পারিবারিক আদালতে স্বামীর বিরুদ্ধে একটি খোরপোষের মামলা করেন। মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে কথা বলতে গায়ত্রী রাণীর দেয়া তার স্বামীর মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে অপরপ্রাপ্ত থেকে রং নম্বর বলে লাইনটি কেটে দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইব্রাহীম খলিল জানান, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]