কুয়েতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশির মৃত্যু, বাড়িতে শোকের মাতম

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কিশোরগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৮:৩২ পিএম, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

কুয়েতে প্রাইভেটকার চাপায় আহত তামিম মিয়ার (২১) মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টার দিকে কুয়েতের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহত তামিমের বাড়ি কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলা সদরের ঘোনাপাড়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের ব্যবসায়ী মো. জুয়েল মিয়ার ছেলে। তামিমের মৃত্যুর খবরে তার বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। বাবা-মাসহ স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে উঠেছে এলাকার পরিবেশ। মৃত্যুর খবর পেয়ে শত শত মানুষ ভিড় করছেন তাদের বাড়িতে।

স্বজনরা জানান, চার বছর আগে কুয়েতে যান তামিম মিয়া। কুয়েতের আল আযহার আতাইমা এলাকায় হোটেলে খাবার সামগ্রী সরবরাহ করতেন তিনি।

তামিমের বাবা মো. জুয়েল মিয়া জানান, গত ১৭ ফেব্রুয়ারি আল আযহার আতাইমা এলাকার হাইওয়েতে মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন তামিম। এ সময় সিগন্যাল অমান্য করে একটি প্রাইভেটকার পেছন দিক থেকে মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় আল আযহার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে লড়াই করে অবশেষে মৃত্যুর কাছে হার মানেন তামিম।

নিহত তামিমের চাচা মো. হেলাল মিয়া বলেন, তামিম ছিল আমাদের পরিবারের সবার আদরের। সব সময় হাসিখুশি থাকতো সে। প্রায়ই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার সঙ্গে কথা হতো। তার এমন মৃত্যু মানতে পারছি না।

তিন ভাইবোনের মধ্যে তামিম ছিল সবার বড়। সন্তানকে হারিয়ে নির্বাক তামিমের বাবা-মা। অপেক্ষা সন্তানের মরদেহের জন্য। কুয়েত থেকে তামিমের মরদেহ দ্রুত দেশে পাঠানোর জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন তারা।

নূর মোহাম্মদ/এসজে/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]