কিশোরীকে অপহরণ ও গণধর্ষণ : ফয়সালের দায় স্বীকার, রিমান্ডে সাইফুল

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ০৮:৩১ পিএম, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১
পুলিশ হেফাজতে সাইফুল ইসলাম

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নে মাদরাসাছাত্রীকে (১৭) একাধিকবার গণধর্ষণ, বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ ও অপহরণের ঘটনায় করা দুই মামলায় আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন ফয়সাল। অন্যদিকে গ্রেফতার সাইফুল ইসলাম ইমনের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে গ্রেফতারকৃতদের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃত দুজনকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোসলেহ উদ্দিন মিজানের আদালতে হাজির করলে ফয়সাল নিজের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। অপরজন ইমনকে ধর্ষণ ও অপহরণ মামলায় তিন দিন ও পর্নোগ্রাফি মামলায় দুদিনসহ মোট পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বেগমগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন জানান, পৃথক দুটি মামলায় সাইফুল ইসলাম ইমনকে পাঁচ দিন করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আদালত দু’টি মামলায় তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলায় অপর দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২০১৮ সালের ১৩ মার্চ রাতে মামলার আসামি ফয়সাল ও জোবায়ের ঘরে ডুকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তার ভিডিও ধারণ করে। ঘরে থেকে যাওয়ার সময় তারা আলমারি থেকে নগদ ৫০ হাজার টাকা, স্বর্ণের চেইন ও দুটি আংটি নিয়ে যান।

এরপর গত ২০২০ সালের ৫ মার্চ রাত আড়াইটার দিকে ইমন ও রাসেল ঘরে ডুকে ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যান। ঘটনার তিন মাস পর রাসেলকে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে ঢাকার মিরপুর থেকে মেয়েকে নিয়ে আসেন তার মা। তিন মাসে ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন রাসেল। এরপর বিভিন্ন সময় ইমন বাড়িতে এসে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে কিশোরীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন।

সবশেষ গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৭টার দিকে তাকে আবারও অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে এখনো পর্যন্ত সে নিখোঁজ রয়েছে। মেয়েকে ফেরত পেতে হলে আসামিরা তার মাকে তাদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দেন।

মিজানুর রহমান/এসজে/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]