ময়মনসিংহে দুই টাকায় শিশুদের মাঝে পেটভর্তি খাবার বিতরণ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ০৮:২৯ পিএম, ০২ এপ্রিল ২০২১

ময়মনসিংহে ছিন্নমূল শিশু ও বৃদ্ধদের মাঝে দুই টাকার বিনিময়ে প্যাকেট ভর্তি খাবার বিতরণ করছেন একদল স্বেচ্ছাসেবী। গ্রিন লাইফ ফাউন্ডেশন নামক স্বেচ্ছাসেবীদের এমন উদ্যোগে হাসি ফুটছে অনেক শিশুর মাঝে।

শুক্রবার (২ এপ্রিল) দুপুরের পরে নগরীর রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় ৮০ জন শিশু ও ছিন্নমূল বৃদ্ধদের মাঝে দুই টাকায় দুপুরের খাবার বিতরণ করেন। সপ্তাহে দুই দিন বুধবার ও শুক্রবার শিশু ও বৃদ্ধের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

সংগঠনের সভাপতি রোবায়েত হোসাইন বলেন, ২০১৯ সাল থেকে গ্রিন লাইফ ফাউন্ডেশন স্বেচ্ছাসেবীদের অর্থায়নে সপ্তাহে বুধবার ও শুক্রবার ছিন্নমূল শিশু ও বৃদ্ধদের মাঝে খাবার বিতরণ করে আসছেন।

jagonews24

তিনি বলেন, সংগঠনটির মূল উদ্যোক্তা আবদুল খালেক হিমেল। বাড়ি জেলার হালুয়াঘাট উপজেলায়। অসহায় মানুষের পাশে থাকার জন্যই তিনি গ্রিন লাইফ ফাউন্ডেশন সংগঠনটি গঠন করেন। দেড় বছর আগে প্রবাসে পাড়ি জমান।

তিনি আরও বলেন, সংগঠনের ৫০ জন স্বেচ্ছাসেবীর সামান্য চাঁদা ও সৌদি থেকে হিমেলের দেয়া অর্থায়নে প্রতি সপ্তাহে দুই দিন দুই টাকার বিনিময়ে অসহায় মানুষের মধ্যে ভালো খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবীরা।

স্বেচ্ছাসেবক এনামুল হক ছোটন বলেন, মাত্র দুই টাকায় ভুনা খিচুড়ি ও ডিম পেয়ে শিশু থেকে বৃদ্ধ সবাই আনন্দিত হন। আমাদের এই কার্যক্রম দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিতে চাই।

jagonews24

স্বেচ্ছাসেবক মাসুদ পারভেজ বলেন, এই সংগঠনে যারা সহায়তা করে চেয়ারম্যান হিমেল ছাড়া সবাই লেখাপড়ার সঙ্গে জড়িত। আমাদের সীমাবদ্ধতার পরও অল্প অল্প করে চাঁদা দিয়ে মানুষের মুখে খাবার তুলে দেয়ার কাজ করে যাচ্ছি। যদি কেউ আমাদের আর্থিকভাবে সহায়তা করে দেশব্যাপী এই কার্যক্রম ছড়িয়ে দিতে চাই।

গ্রিন লাইফ ফাউন্ডেশন সাধারণ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম রিয়াদ বলেন, দুই টাকায় খাবার বিতরণ ছাড়াও সামাজিক উন্নয়নমূলক আরও ৯টি সংগঠন আছে। অর্থ সহায়তা পেলে সবকটি সংগঠনের কাজ শুরু করতে পারব বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে কথা হয় গ্রিন লাইফ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবদুল খালেক হিমেল বলেন, সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য ছিন্নমূল শিশুদের মুখে হাসি ফুটিয়ে তোলা। অন্ততঃপক্ষে সপ্তাহে দুই দিন তাদের ভালো খাবার পৌছে দেয়া দেয়া। আমার দেড় বছরের প্রবাস জীবনে এক টাকাও পরিবারের হাতে তুলে দিতে পারিনি। তবে, আপনাদের মাঝে সমাজের বিত্তবান মানুষের কাছে সহায়তা আশা করছি।

মঞ্জুরুল ইসলাম/এমআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]