বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা ট্রলারে হামলা, ১৬ জেলে আহত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি বরগুনা
প্রকাশিত: ০২:৫০ এএম, ০৬ মে ২০২১
ফাইল ছবি

বরগুনার পাথরঘাটা থেকে ৪০ কিলোমিটার দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরে এফবি মা-বাবার দোয়া নামে একটি মাছ ধরার ট্রলারে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরা এফভি সালমান-৩ নামে একটি ট্রলিং জাহাজের জেলেদের বিরুদ্ধে। তাদের হামলায় ট্রলারটির ১৬ জেলে আহত হয়েছেন।

এ সময় হামলাকারীরা ফিশিং ট্রলার থেকে অন্তত ৫ লাখ টাকার জাল এবং ৫০ হাজার টাকার মাছ লুট করে নিয়ে যান বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

গভীর সমুদ্র থেকে ফিরে বুধবার (৫ মে) দুপুরে পাথরঘাটা বিএফডিসি মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে এফবি মা-বাবার দোয়া ট্রলারের মালিক ও মাঝি মো. ফিরোজ মিয়া সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন।

এর আগে গত ২৯ এপ্রিল রাত আটটার দিকে গভীর সমুদ্রে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, গত ২৫ এপ্রিল গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার জন্য যান পাথরঘাটা উপজেলাধীন চরদুয়ানী ইউনিয়নের খলিফারহাট গ্রামের মো. ফিরোজ মিয়ার মালিকানাধীন এফবি মা-বাবার দোয়া ট্রলারসহ ১৬ জেলে। গত ২৯ এপ্রিল বিকেলে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার জন্য জাল ফেলে অপেক্ষা করার সময় রাত ৮টার দিকে এফভি সালমান-৩ নামে একটি বড় ট্রলিং জাহাজ (ফিশিং ভেসেল) তাদের ট্রলারে এসে অতর্কিত হামলা করে। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই হামলাকারীরা ৫ লাখ টাকার মূল্যের প্রায় ৫ হাজার হাত জাল কেটে মাছসহ লুট করে নিয়ে যান।

এফবি মা-বাবার দোয়া ট্রলারের মালিক ও মাঝি মো. ফিরোজ মিয়া বলেন, ‘আমি এই হামলার বিচার ও ক্ষতিপূরণ দাবি করছি।’

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, ‘বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘাটে এসে জেলেরা তাদের ওপর হামলার ঘটনা জানিয়েছেন। আমরা তাৎক্ষণিক ওই মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কথা বলতে পারিনি। এছাড়া চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের ট্রলার মালিক সমিতি ও ফিশিং ভেসেল মালিক সমিতির সাথেও যোগাযোগের চেষ্টা করছি।’

পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাবুদ্দিন বলেন, ‘এ ব্যাপারে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। তবে লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখব এবং দোষীদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।’

এমআরআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]