চুলকাটারত ব্যক্তিকে মেরে তুলে দিলেন ছাত্রদল নেতা, মামলায় কারাগারে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ০৯:৩৫ এএম, ১৩ জুন ২০২১

সেলুনে চুল কাটাতে গিয়ে বিমান বাহিনীর সদস্যদের মারধর করার অভিযোগে নোয়াখালীর সদর উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিবসহ দুইজনকে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

তারা হলেন-সদর উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব ও উপজেলার ৭নং ধর্মপুর ইউনিয়নের চর দরবেশ গ্রামের হাজী আবুল কালাম মাঝির ছেলে মো. হাবিবুর রহমান হাবিব (৩২) এবং একই ইউনিয়নের পূর্ব শুল্যাকিয়া গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে মো. সৌরভ হোসেন বিন জাহিদ (২২)।

শনিবার (১২ জুন) দুপুর ২টায় আটকদের গ্রেফতার দেখিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এরআগে সকালে সুধারাম এয়ার ফিল্ডের এলএসি মো. রনি মিয়া বাদী হয়ে ছাত্রদল নেতা হাবিবসহ দুইজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করে সুধারাম থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ২০।

তার আগে শুক্রবার (১১ জুন) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার চর শুল্ল্যাকিয়া (সুধারাম এয়ার ফিল্ড) এলাকায় উত্তর ওয়াপদা বাজারের হৃদয় সেলুনে এই ঘটনা ঘটে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, চর শুল্ল্যাকিয়া (সুধারাম এয়ার ফিল্ড) এলাকায় উত্তর ওয়াপদা বাজারের হৃদয় সেলুনে বিমান বাহিনীর দুইজন সদস্য চুল কাটাতে যান। চুল কাটা অবস্থায় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিমান বাহিনীর সদস্য রনিকে ধাক্কা দিয়ে উঠিয়ে দিয়ে ওই চেয়ারে বসে পড়েন ছাত্রদল নেতা হাবিব। এতে রনি প্রতিবাদ করলে হাবিবের সঙ্গীরা বলেন, ধাক্কা দিলে কোনো সমস্যা নেই। তিনি এলাকার বড়ভাই। বিমান বাহিনীর সদস্য বলার পরও পুনরায় তারা তাকে ধাক্কা দিতে থাকেন। এসময় তার সঙ্গীয় সৈনিক মেহেদি হাসান প্রতিবাদ করলে ছাত্রদল নেতা হাবিবসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করেন।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাহেদ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, এ ঘটনায় বিমান বাহিনীর এক সদস্য বাদী হয়ে মামলা করেছেন। ওই মামলায় আটকদের গ্রেফতার দেখিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

অপরদিকে, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান মো. নোমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ছাত্রদল নেতা হাবিবকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]