টিকটক-লাইকি ভিডিও করতে বাধা দেওয়ায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া
প্রকাশিত: ০৩:২৮ পিএম, ০২ সেপ্টেম্বর ২০২১

বগুড়ায় টিকটক-লাইকিতে আসক্তির জেরে পারিবারিক কলহে আত্মহত্যা করেছে রাইসা আকতার (১৪) নামের এক স্কুলছাত্রী। সে ধুনট পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। তার বাবার নাম ছাবেদ আলী।

বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ধুনট পৌর এলাকার পশ্চিম ভরনশাহী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) সকালে রাইসার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, করোনার কারণে বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় রাইসা টিকটক ও লাইকিতে আসক্ত হয়ে পড়ে। জনপ্রিয়তা পেতে ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করতে থাকে রাইসা। বিষয়টি তার পরিবারের লোকজনের নজরে আসে। এ নিয়ে বড় বোনের সঙ্গে ঝগড়া হয় রাইসার। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে বুধবার বিকেলে নিজ শয়নকক্ষের দরজা লাগিয়ে দেয় সে। পরে সন্ধ্যার দিকে পরিবারের লোকজন ঘরে ঢুকে রাইসাকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় দেখতে পান।

স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ রাইসার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা ছাবেদ আলী বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেছেন।

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জহুরুল ইসলাম জানান, রাইসাকে চিকিৎসার কোনো সুযোগ পাওয়া যায়নি। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, স্কুলছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]