ভোটে জিতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে নাচছেন নারী মেম্বার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৮:৫৪ পিএম, ৩০ নভেম্বর ২০২১

প্রথমবার নির্বাচনে দাঁড়িয়েই বাজিমাত করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মরজিনা বেগম। তিনি নবীনগর উপজেলার জিনোদপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী মেম্বার (সদস্য) পদে জয়লাভ করেছেন। এরইমধ্যে নতুন করে আলোচনায় এসেছেন এ নারী মেম্বার। নির্বাচনে জেতার আনন্দে তিনি বাড়ি বাড়ি গিয়ে বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে নেচে ভোটারদের কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছেন। এ-সংক্রান্ত একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

১ মিনিট ১১ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বাড়ি বাড়ি গিয়ে বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে নাচছেন মরজিনা বেগম। তার গলায় টাকার মালা। তার সঙ্গে নাচছেন গ্রামবাসীরাও।

রোববার (২৮ নভেম্বর) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে জিনোদপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে সংরক্ষিত নারী মেম্বার পদে বিজয়ী হয়েছেন মরজিনা বেগম।

মরজিনা বেগম ৯ নম্বর ওয়ার্ড বলিবাড়ি গ্রামের দুলাল মিয়ার স্ত্রী। তার প্রথম স্ত্রী এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে মারা যান। ১৫ বছর আগে মরজিনাকে বিয়ে করেন দুলাল। এ সংসারে তাদের দুই ছেলে সন্তান রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বলিবাড়ি গ্রামে গত ২৫ বছর কোনো সংরক্ষিত নারী মেম্বার পদে কেউ জয়লাভ করতে পারেননি। এবার বলিবাড়ি গ্রাম থেকে একক প্রার্থী হিসেবে সমর্থন দেওয়া হয় মরজিনা বেগমকে। অন্য গ্রাম থেকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আরও সাতজন। তবে তাদের হারিয়ে জয়ের দেখা পেয়েছেন মরজিনা। এজন্য গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে যাচ্ছেন কৃতজ্ঞতা জানাতে। এসময় তার সঙ্গে থাকছে বাদ্যযন্ত্র। সেই বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে নাচছেন মরজিনা। তাকে উপহার হিসেবে গ্রামের মুরব্বিরা টাকা দিচ্ছেন। সেই টাকার মালাও মরজিনা গলায় ঝুলিয়েছেন।

বক্তব্য জানতে নবনির্বাচিত নারী মেম্বার মরজিনা বেগমের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি। তবে তার স্বামী দুলাল মিয়া জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমার স্ত্রীর প্রতি গ্রামের মানুষের অনেক সমর্থন ছিল। মরজিনা মেম্বার হওয়ায় আমিও খুশি। আমি চাই সে মানুষের কল্যাণে কাজ করবে’।

দুলাল মিয়ার চাচাতো ভাই আবু মুসা বলেন, ‘আমি নিজেও এবার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে মেম্বার পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হয়েছি। আমার ভাবি মরজিনা জয়লাভ করায় খুশি হয়েছি। যোগ্য প্রার্থী হিসেবে গ্রামের মানুষ এককভাবে মরজিনাকে মনোনীত করেছিল।’

আবুল হাসনাত মো. রাফি/এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]