বাবা ও তার বন্ধু মিলে টানা ধর্ষণ করছিলেন, মামলায় বললো কিশোরী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি হবিগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৯:২৪ পিএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১
অভিযুক্ত আব্দুল খালেক (বাম পাশে হলুদ টি-শার্ট পরিহিত) ও তার বন্ধু

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে বাবা ও তার বন্ধুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছে এক কিশোরী (১৩)। এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুইজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে নিজ বাড়ি থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। বুধবার (৮ ডিসেম্বর) আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হচ্ছেন-চুনারুঘাট উপজেলার বাসিন্দা কিশোরীর বাবা আব্দুল খালেক (৪০) ও তার বন্ধু আব্দুল কাদির (৪০)।

চুনারুঘাট থানার পরিদর্শক তদন্ত চম্পক ধাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ওই কিশোরী বর্তমানে থানা হেফাজতে আছে। বুধবার তার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়। গ্রেফতার দুজনকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পুলিশ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আব্দুল খালেক মালয়েশিয়া প্রবাসী। প্রায় এক বছর আগে করোনার কারণে দেশে এসে আটকা পড়েন। দেশে আসার পর থেকে স্ত্রীর সঙ্গে তার দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। স্ত্রীকে নির্যাতনও করতেন। এক পর্যায়ে নির্যাতন সইতে না পেরে এক মাস আগে বাবার বাড়ি চলে যান খালেকের স্ত্রী। ওই কিশোরী তার বাবার সঙ্গে থেকে যায়।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) থেকে প্রতিদিন ধর্ষণ করে আসছিলেন আব্দুল খালেক। তার এক বন্ধুও মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। সোমবার সকালে ঘটনাটি তার চাচিকে জানায় ওই কিশোরী। এ অবস্থায় তারা চরম বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন। তারা ৯৯৯-এ বারবার ফোন করে সহযোগিতা চাইলেও কেউ এগিয়ে আসেননি। এক পর্যায়ে র‌্যাব-৯ হবিগঞ্জ ক্যাম্পকে তারা বিষয়টি জানান। খবর পেয়ে মঙ্গলবার র‌্যাবের একটি দল নিজ বাড়ি থেকে বাবা আব্দুল খালেক ও তার বন্ধু আব্দুল কাদিরকে গ্রেফতার করে।

সৈয়দ এখলাছুর রহমান খোকন/এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]