সরকারি জায়গায় তোলা আ’লীগ নেতার ঘর ভেঙে দিলো জনতা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৫:১৪ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২২
ভাঙা হচ্ছে সরকারি জায়গায় নির্মাণ করা ঘর

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় বাজারের ড্রেন দখল করে দোকান ঘর তোলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. আক্কাছ আলী আক্কাছ। শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকালে দোকান ঘরটি ভেঙে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা।

বাজারের দোকানিরা জানান, নগরকান্দা বাজারের পাশে কুমার নদীর পাড়ের ওই জায়গায় অনেক আগে একটি ঘাট ছিল। সরকারি এ জায়গায় গণশৌচাগার এবং পাকা ঘাট নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। কিন্তু শুক্রবার দিনগত রাতে ওই জায়গা দখল করে ড্রেনের দুই পাশে টিন দিয়ে দোকান ঘর তোলেন আওয়ামী লীগ নেতা আক্কাছ আলী। খবর পেয়ে শনিবার সকালে এলাকার বিক্ষুব্ধ জনতা অবৈধভাবে নির্মাণ করা ঘর ভেঙে দিয়ে সরকারি জায়গা দখলমুক্ত করে।

পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন নগরকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেতী প্রু ও নগরকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিল হোসেন।

এ বিষয়ে নগরকান্দা বাজার বণিক সমিতির অর্থ সম্পাদক ও নগরকান্দা পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. জাকির হোসেন জাকারিয়া জাগো নিউজকে বলেন, গভীর রাতে নগরকান্দা বাজারের ড্রেন দখল করে অবৈধভাবে ঘর তোলা হয়েছে। এ খবর পেয়ে শনিবার সকালে আমি ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি ড্রেন দখল করে নির্মাণ করা ঘরটি ভেঙে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ জনতা।

bazer1

তিনি আরও বলেন, ওই জায়গায় অনেক আগে কুমার নদের ঘাট ছিল। বাজার ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে ড্রেনের দুই পাশের ফাকা জায়গায় পৌরসভার পক্ষ থেকে গণশৌচাগার এবং কুমার নদের পাড়ে পাকা ঘাট নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আক্কাছ আলী আক্কাছ জাগো নিউজকে বলেন, আমি ২০১০ সালে এই জায়গার ডিসিআর নিয়েছিলাম। তবে তখন এই জায়গায় ঘর নির্মাণ করা হয়নি। ঘর না থাকার কারণে ডিসিআরের নবায়ন করে দেয়নি। ডিসিআরের নবায়ন পেতেই আমার আমি দোকান ঘর নির্মাণ করেছি।

এ বিষয়ে নগরকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেতী প্রু জাগো নিউজকে বলেন, নগরকান্দা বাজারের সরকারি জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তবে আমি ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই বিক্ষুব্ধ জনতা ঘরটি ভেঙে ফেলে।

এন কে বি নয়ন/এসজে/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]