ফেনীতে রং-চালের কুড়া দিয়ে মসলা তৈরি, নারীসহ কারাগারে ৩

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ০৪:১৫ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২২
র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার নারীসহ

ফেনীতে ভেজাল রং ও চালের কুড়া মেশানো ৪২ বস্তা (১ হাজার ৩১৫ কেজি) মরিচ ও হলুদসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। রোববার (২৩ জানুয়ারি) আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলা কারাগারে পাঠিয়ে পুলিশ।

গ্রেফতাররা হলেন, নেত্রকোনা জেলার কলমাকান্দা উপজেলার হরিপুর গ্রামের মিরাজ আলীর ছেলে মো. জামাল (২৭), বাগের হাটের মোড়লগঞ্জ উপজেলার সাইর খালী গ্রামের মিজানের স্ত্রী নাজমা বেগম (৩০) এবং লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার চরলক্ষ্মী গ্রামের ইসমাইল ব্যাপারীর স্ত্রী নুর জাহান (৫০)।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-৭ জানায়, দীর্ঘদিন ফেনীর তাকিয়া রোড়স্থ কয়েকটি মসলা ভাঙার মিলে ভেজাল মসলা তৈরি করে ফেনী ও আশপাশের হাট বাজারে বিক্রি করা হচ্ছে। এসব ভেজাল মসলা খেয়ে ভোক্তারা পেটেরপীড়াসহ নানা ব্যাধিতে ভুগছেন।

এ অবস্থায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাতে তাকিয়া রোডস্থ বাবুল মিয়ার মসলার মিলে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ৪২টি প্লাস্টিকের বস্তার ভেতর থেকে ১ হাজার ৩১৫ কেজি ভেজাল রং ও চালের কুড়া মিশ্রিত মরিচ ও হলুদের গুড়া জব্দ করা হয়। তাৎক্ষণিক ধাওয়া করে মিলঘরে থাকা দুই নারীসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

ফেনীতে রং-চালের কুড়া দিয়ে মসলা তৈরি, নারীসহ কারাগারে ৩

ফেনীস্থ র‌্যাব-৭ এর উপ-পরিচালক আবদুল্লাহ আল জাবের ইমরান জানান, জব্দকৃত ভেজাল মসলার আনুমানিক দাম ৩ লাখ ২৮ হাজার ৭৫০ টাকা। পরে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ফেনী মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন বলেন, র‌্যাব মামলা দিয়ে আটকদের থানায় হস্তান্তর করে। তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নুর উল্লাহ কায়সার/এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]