৪ বছর পর জানলেন খালাতো বোনকে বিয়ে করেছেন প্রেমিক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নীলফামারী
প্রকাশিত: ০৬:৫৭ পিএম, ২৬ জুন ২০২২

নীলফামারীর ডোমারে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন এক কলেজছাত্রী। শনিবার (২৫ জুন) রাত থেকে উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের জামিরবাড়ী গুপ্তপাড়া এলাকার প্রেমিক জ্যোতিশ রায় মধুর বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন তিনি।

জ্যোতিশ রায় (১৯) ওই গ্রামের রামকৃঞ্চ বর্মনের ছেলে। ভুক্তভোগী ওই কলেজছাত্রী (১৮) উপজেলার হরিনচড়া ইউনিয়নের হংসরাজ বাবুপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি ডোমার বালিকা ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। জ্যোতিশ রায় মধু রংপুর কলেজে এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। প্রেমিকা বাড়িতে অবস্থান নেওয়ার পর থেকে পালিয়েছেন মধু।

তরুণীর ভাষ্যমতে, চার বছর ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রলোভনে মধু তার সঙ্গে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করেন। সম্প্রতি মধু তাকে এড়িয়ে চলছেন। শনিবার দুপুরে তার সঙ্গে মোবাইলে কথা হলে তিনি জানান, পরে তাকে ফোন দেবেন। কিন্তু পরে আর ফোন দেননি। তাই বাধ্য হয়ে তিনি ওই যুবকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন।

তরুণী বলেন, ‘এখানে আসার পর মধুর পরিবার জানায়, প্রায় ১০ মাস আগে মধুর সঙ্গে তার খালাতো বোনের আদালতের মাধ্যমে বিয়ে হয়েছে। মধু আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছে। সে যদি আমাকে বিয়ে না করে তাহলে আমি আত্মহত্যার পথ বেছে নেবো।’

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত যুবক জ্যোতিশ রায় মধুর মোবাইলে কল দিলে প্রেমিকার কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে সংযোগ কেটে দেন। পরে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

মধুর বাবা রামকৃঞ্চ বর্মন বলেন, ১০ মাস আগে খালাতো বোনের সঙ্গে মধুর বিয়ে হয়েছে। যদি তার ছেলে বিয়ে না করতেন তাহলে মেয়েটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া যেত। বিষয়টি তিনি ইউপি চেয়ারম্যানকে জানিয়েছেন।

সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফিরোজ বলেন, ‘ছেলেটি আরও একটি মেয়েকে বিয়ে করেছে বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন। বিষয়টি ভালো করে জানার পর দুই পরিবারের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে ডোমার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইফুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, এ বিষয়ে কোনো পক্ষ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]