কাভার্ডভ্যান চালক হত্যায় আরেক আসামি গ্রেফতার, আদালতে স্বীকারোক্তি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুর
প্রকাশিত: ১১:৩৫ পিএম, ০১ জুলাই ২০২২

দিনাজপুরের বিরল উপজেলায় রাস্তায় সাইড দিতে দেরি হওয়ায় প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের কাভার্ডভ্যান চালককে হত্যার ঘটনায় আরও একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে এ মামলায় তিনজনকে গ্রেফতার করা হলো।

গ্রেফতার হওয়া আসামি পাবেল রানা (২৫) শুক্রবার রাত ৯টার দিকে বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

পাবেল রানাকে ঢাকার দারুস সালাম এলাকা থেকে বিরল থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেফতার করে। পাবেল বিরল উপজেলার ৪ নম্বর শহরগ্রাম ইউনিয়নের পাঁচমারা গ্রামের আবুল কালাম আজাদের ছেলে।

এর আগে গত ২১ ও ২২ জুন দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন- দিনাজপুরের বিরল উপজেলার তেঘরা নারায়ণপুর গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে শাহিনুর আলম মানিক (৪২) ও বোচাগঞ্জ উপজেলার মুর্শিদহাট গ্রামের মৃত আইযুব আলীর ছেলে রনী হাসান (২৮)।

বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফখরুল ইসলাম জানান, ঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক ছিল। এ মামলায় পাবেল রানাসহ এখন পর্যন্ত তিনজনকে গ্রেফতার করা হলো। পাবেল রানাকে শুক্রবার বিকেলে আদালতে হাজির করা হলে রাত ৯টার সময় বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। দিনাজপুরের সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মনিরুল ইসলাম ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণ করেন।

গত ২০ জুন বিকেল পৌনে ৩টার দিকে উপজেলার ধুকুরঝাড়ী পাওয়ার স্টেশনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

রানীশংকৈল উপজেলায় মালামাল ডেলিভারি দিয়ে চালক মোস্তফা এবং হেলপার আমিনুর রহমান দিনাজপুরের দিকে আসছিলেন। পথে ধুকুরঝাড়ী পেট্রল পাম্পের সামনে চারটি মোটরসাইকেল কাভার্ডভ্যানকে ওভারটেক করতে হর্ন দিচ্ছিল। রাস্তার বাঁ পাশে একটি ব্যাটারিচালিত ভ্যান থাকায় তাদের সাইড দেওয়া সম্ভব হয়নি। পাওয়ার স্টেশনের সামনে যেতেই চার মোটরসাইকেলে থাকা লোকজন কাভার্ডভ্যানটির গতিরোধ করে। এসময় ছয়-সাতজন মিলে চালককে গাড়ি থেকে নামিয়ে মারধর করে। সে সময় চালকের উরুতে ছুরিকাঘাত করে তারা পালিয়ে যায়। পরে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিলে অ্যাম্বুলেন্স এসে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসাপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক চালককে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত চালক মোস্তফা টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী থানার বড়ইযান গ্রামের মোকাদ্দেছ আলীর ছেলে। আহত চালকের সহকারী আমিনুর রহমান রংপুরের পায়রাবন্দ এলাকার এমদাদ আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় গত ২১ জুন নিহতের বড় ভাই কাওছার আলী আবু রায়হান বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা কয়েকজন ব্যক্তির নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এমদাদুল হক মিলন/এমএইচআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]