লক্ষ্মীপুরে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ৫৬ কোটি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৯:৩৬ এএম, ০৪ জুলাই ২০২২

লক্ষ্মীপুরে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের প্রায় ৯৯ কোটি ৩১ লাখ টাকার ঋণের মধ্যে প্রায় ৫৬ কোটি ৪৫ লাখ টাকা খেলাপি রয়েছে। এরমধ্যে প্রায় ২৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা মেয়াদোত্তীর্ণ ঋণ খেলাপি। তবে কিছু নামে-বেনামে ঋণ পাস করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক সূত্র জানায়, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের লক্ষ্মীপুর সদর, রায়পুর, রামগঞ্জ, রামগতি ও কমলনগর শাখায় ৯৯ কোটি ৩১ লাখ ৮৪ হাজার ২০৬ টাকা ঋণ দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে গত ২৯ জুন পর্যন্ত ৫৬ কোটি ৪৫ লাখ ৬২ হাজার ১৪৩ টাকা খেলাপি ঋণ। মোট ঋণের ৫৬.৮৪ শতাংশ টাকা গ্রাহকরা আত্মসাৎ করেছেন। মেয়াদোত্তীর্ণ ঋণ রয়েছে ২৭ কোটি ৬৪ লাখ ৮০ হাজার ৪০৬ টাকা।

রায়পুর শাখায় ঋণ খেলাপি ১০ কোটি ৬২ লাখ ৯৮ হাজার ১৫৬ টাকা, এরমধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ৫ কোটি ৬৭ লাখ ৬ হাজার ৭৩১ টাকা। রামগঞ্জে খেলাপি ১০ কোটি ৬৪ লাখ ২৩ হাজার ১১৮ টাকা, এরমধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ৪ কোটি ৭২ লাখ ৮২ হাজার ৮৪৮ টাকা। সদরে খেলাপি ১৭ কোটি ৯৯ লাখ ৩১ হাজার ৮৬৬ টাকা, এরমধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ৯ কোটি ২১ হাজার ১৩২ টাকা। কমলনগরে খেলাপী ১০ কোটি ১৪ লাখ ৩৮ হাজার ৯৫৮ টাকা, এরমধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ৪ কোটি ৪৯ লাখ ৬৩ হাজার ২২ টাকা। রামগতিতে খেলাপী ৭ কোটি ৪ লাখ ৭০ হাজার ৪৫ টাকা, এরমধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ৩ কোটি ৭৫ লাখ ৬ হাজার ৬৭৩ টাকা।

এদিকে কমলনগরে নামে-বেনামে ৭০০ জনের ঋণ পাস করে ব্যাংকের মাঠ সহকারীরা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। বর্তমান ও সাবেক ইউএনওদের স্বাক্ষর জাল করে সাবেক ব্যবস্থাপক, কম্পিউটার অপারেটর ও মাঠকর্মীদের বিরুদ্ধে ঋণ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। কমলনগর শাখার ব্যবস্থাপক মুহাম্মদ সোলায়মান এ ঘটনায় গত ৬ এপ্রিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ কামরুজ্জামানের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে ইউএনও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আতিক আহমেদকে ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দেন।

পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সদর শাখার ব্যবস্থাপক ও জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পলাশ চক্রবর্তী বলেন, খেলাপি ঋণ আদায়ে আমরা মাঠ পর্যায়ে কাজ করছি। নিয়মিত গ্রাহকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। কমলনগরের জাল-জালিয়াতির বিষয়টি প্রধান কার্যালয় ও ইউএনও তদন্ত করছেন।

কাজল কায়েস/এফএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]