ভৈরবে জমি নিয়ে বিরোধে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৩০

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক ভৈরব (কিশোরগঞ্জ)
প্রকাশিত: ১০:২৪ এএম, ১১ আগস্ট ২০২২

ভৈরবে জমি সংক্রান্ত দ্বন্দ্বের জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ঘরে অগ্নি সংযোগ, ভাঙচুর ও ৩০ জনের বেশি আহত হয়েছেন।

বুধবার (১০ আগস্ট) রাত সাড়ে ৯টার দিকে ভৈরব উপজেলার কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের কুমির মারা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জমি সংক্রান্ত জের ধরে উপজেলার কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের কুমিরমারা গ্রামের হাজেরা বাড়ি ও তিতির বাড়ির মধ্যে কয়েকদিন যাবত নানা বিষয়ে কথা কাটাকাটির ঘটনা ঘটে। ৬-৭ দিন আগে হাজেরা বাড়ির ছাত্তার মিয়া ও তিতির বাড়ির মধু মিয়ার সঙ্গে একটি জমি নিয়ে বিরোধ হয়েছে। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিলো।

বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে হঠাৎ হাজেরা বাড়ির ছাত্তার মিয়াসহ তার লোকজন তিতির বাড়ির মধু মিয়ার বাড়ির লোকজনদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় উভয় পক্ষের ৩০-৩৫ জন আহত হন। এ সময় অগ্নিসংযোগে তিতির বাড়ির একটি বসতঘর পুড়ে যায়। এছাড়া কয়েকটি ঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

এ সময় গুরুতর আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছেন কুমিরমারা গ্রামের তিতির বাড়ির মধু মিয়া। এছাড়া ১৫-২০ জন আহত হয়ে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ বিষয়ে কালিকাপ্রসাদ ইউপি চেয়ারম্যান মো. লিটন মিয়া জানান, কুমিরমারা গ্রামের ছাত্তার মিয়া ও মধু মিয়ার মধ্যে একটি জমি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলছিলো। কয়েক দিন আগে এই বিরোধ মিমাংসা করতে আমার কাছে এসেছিলো। আমি তাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ মীমাংসার জন্য বৃহস্পতিবার সালিশের তারিখ নির্ধারণ করি। কিন্তু সালিশের আগেই দু’পক্ষের লোকজন রাতের বেলা সংর্ঘষে লিপ্ত হন।

ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. গোলাম মোস্তফা জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে পুলিশ। বর্তমানে এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে।

এফএ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।