শেরপুরে কৃষককে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় আটক ২

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি শেরপুর
প্রকাশিত: ০২:৩৯ এএম, ২৮ নভেম্বর ২০২২

অডিও শুনুন

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে কৃষককে হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। 

রোববার (২৭ নভেম্বর) রাতে ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম ভূঁইয়া আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এর আগে সকালে উপজেলার মাদারপুর এলাকায় কৃষক আবু রায়হান গাজীকে (৩৫) নির্যাতন করা হয়। তিনি ঝিনাইগাতী উপজেলার ধানশাইল ইউনিয়নের মৃত আব্দুল ওয়াহাবের ছেলে। 

স্থানীয়রা জানান, কিছুদিন যাবৎ প্রতিবেশী শাহজাদা, আজাদ ও সামিউল গংদের সঙ্গে আবু রায়হান গাজীর জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। রোববার সকালে তিনি বাড়ি থেকে শেরপুর জেলা শহরে যাওয়ার জন্য বের হন। এসময় তাকে রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে রশি দিয়ে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করেন প্রতিপক্ষের শাহজাদা, আজাদ ও সামিউলরা। ফেসবুকে নির্যাতনের ভিডিও দেখে গাজীর ভাই জালাল ৯৯৯-এ কল দিলে পুলিশ আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইগাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায়।

গাজীর স্ত্রী রাণী বেগম বলেন, ‘আমার স্বামীরে ওরা ধইরা নিয়া বাইন্দা মাইরপিট করে। কত ডাকচিৎকার পারলো। ওগোরে ডরে কেউ ফিরাবার যাবার সাহস পায় নাই। আমি এর বিচার চাই।’

গাজীর ভাই জালাল জানান, ফেসবুকে মারধরের ভিডিও দেখে তিনি ৯৯৯-এ কল দেন। এরপর পুলিশ গিয়ে গাজীকে উদ্ধার করে।

এলাকার কয়েকজন বলেন, ‌‘হুট করে রাস্তা থেকে একজন মানুষ ধরে নিয়ে বেঁধে মারধর করবে এটা কেমন কথা। যদি এমন ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।’

আরও পড়ুন: শেরপুরে জমিসংক্রান্ত বিরোধে কৃষককে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন

স্থানীয় বাসিন্দা শামিম মিয়া বলেন, ‘সকালে ঘুম উঠে খবর পাই গাজী ভাইকে দড়ি দিয়ে বেঁধে মারধর করা হচ্ছে। প্রতিবেশী শাহজাদা, আজাদ ও সামিউলকে সবাই ভয় পায়। তাই কেউ সাহস করে গাজী ভাইকে ছাড়াতে যায়নি। এরপর পুলিশ খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে।’

গাজীকে মারধরের অভিযোগ স্বীকার করেছেন আবুল কালাম আজাদের পুত্রবধূ হাছনা হেনা। তিনি বলেন, ‘গাজী আমাদের অত্যাচার করছে, তাই তারে বাইন্দা রাইখে কিছু মাইরপিট করা হইছে।’

আবু রায়হান গাজী বর্তমানে ঝিনাইগাতী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হলেও এখন তার অবস্থা উন্নতির দিকে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক তাসনুভা হোসেন।

ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, ঘটনাটি আমরা ৯৯৯-এর মাধ্যমে জানতে পারি। পরে ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করি। এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

ইমরান হাসান রাব্বী/ইএ

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।