ভৈরব নদীবন্দর

শত বছরের পুরোনো অর্ধশতাধিক ভবন, ঝুঁকি নিয়ে বসবাস

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি ভৈরব (কিশোরগঞ্জ)
প্রকাশিত: ০৭:৫৪ পিএম, ৩০ নভেম্বর ২০২২

বৃটিশ শাসনামল থেকে ভৈরব নদীবন্দর একটি সমৃদ্ধ জনপদ। বিশাল হাওরাঞ্চলের কৃষি, মৎস্য আর পাটকে কেন্দ্র করে এখানে ব্যবসার প্রসার হয়ে ক্রমান্বয়ে গড়ে ওঠে জনবসতিসহ শত শত ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। তৈরি হয় বিভিন্ন ভবন।

কালের বিবর্তনে সেগুলো এখন পুরোনো হয়ে গেছে। জরাজীর্ণ আর ঝুঁকিপূর্ণ সত্ত্বেও ভবনগুলোতে এখনো বসবাস করছে মানুষ। এতে যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। মানুষের প্রাণহানিসহ কোটি কোটি টাকার সম্পদ নষ্টের আশঙ্কা রয়েছে।

jagonews24

ভৈরব বাজার নদীরপাড়, লোহাঘাট, গুড়পট্টি, হলুদপট্টি, মরিচপট্টি, টিনপট্টি, নতুনগলি, কাপড়পট্টি, বটতলারোড, চকবাজার, রানির বাজার, শাহী মসজিদ রোড, কাচারিমোড় সড়ক ও অলিগলিতে এসব ঝুঁকিপূর্ণ ভবন কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে।

ভৈরব চকবাজার এলাকায় একটি পুরাতন জরাজীর্ণ ভবনের দ্বিতীয় তলায় পরিবারসহ বসবাস করছেন ভবনের মালিক চায়না বেগম। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘ওয়ারিশ নিয়ে আমাদের পরিবারে ঝামেলা চলছে। তাই ভবনটি আপাতত ভাঙা যাচ্ছে না। এই সমস্যার সমাধান হলে যাদের ভাগে পড়বে তারাই ভবনটি ভেঙে নতুন করে নির্মাণ করবে।’

jagonews24

শাহী মসজিদ রোড এলাকার ব্যবসায়ী কবির আহমেদ বলেন, ‘প্রতিদিন আল্লাহ-খোদাকে ডেকে দোকানে ঢুকি। বের হয়ে বেঁচে থাকার জন্য আলহামদুলিল্লাহ বলি। কারণ আমার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের দেওয়াল ও ছাদের বিভিন্ন স্থানে ফাটল ধরেছে। পলেস্তারা খসে খসে পড়ছে। তবে মালিক খুব শিগগির ভবনটি ভেঙে নতুন করে করবেন বলে উদ্যোগ নিয়েছেন।’

ভৈরব বাজারের তরুণ ব্যবসায়ী রাকিব হোসাইন বলেন, ‘ভৈরব একটি পুরাতন শহর হওয়ায় এখানে বেশ কিছু পুরোনো ও জরাজীর্ণ ভবন রয়েছে। ভবনগুলো যেকোনো মুহূর্তে ভেঙে পড়ে হতাহতের ঘটনা ঘটতে পারে। এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।’

jagonews24

সার ব্যবসায়ী আসাদুজ্জামান ফারুক বলেন, এখানকার প্রায় অর্ধশত ভবন ঝুঁকিপূর্ণ। যেকোনো সময় মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলোতে বসবাস ও ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান ভৈরব বাজার ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার আজিজুল হক রাজন। তিনি বলেন, ভবনগুলো ধসে পড়ে যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

jagonews24

এ বিষয়ে পৌরমেয়র ইফতেখার হোসেন বেনু জাগো নিউজকে বলেন, অচিরেই সংশ্লিষ্টদের নোটিশ দেওয়া হবে। তাতে যদি ভবনমালিকরা সাড়া না দেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাজীবুল হাসান/এসআর/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।