নেপালে দুর্গতদের পাশে দাঁড়ালো বাংলাদেশের প্রাণ


প্রকাশিত: ০৩:২৯ পিএম, ২৭ এপ্রিল ২০১৫

ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত নেপালের মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ। দেশের একমাত্র বেসরকারি খাতের প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ প্রথম এ ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশে অবস্থিত নেপাল দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত হারি কুমার শ্রেষ্ঠার সঙ্গে দেখা করে প্রাণ-এর পরিচালক ইলিয়াস মৃধা তিন হাজার কার্টন বিস্কুট ও ফ্রুট ড্রিংকস প্রদান করার ঘোষণা দেন। এসময় প্রাণ-এর পক্ষ থেকে নেপালের হতাহত জনগণের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়।

নেপালের জনগণের এই দুর্দিনে পাশে থাকার জন্য প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন ও প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের সমৃদ্ধি কামনা করেন নেপালের রাষ্ট্রদূত হারি কুমার শ্রেষ্ঠা।

তিনি জানান, প্রাণ ইতোমধ্যে নেপালের জনগণের কাছে একটি জনপ্রিয় ব্র্যান্ড হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে।

প্রাণ-এর পরিচালক ইলিয়াস মৃধা জানান, সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ এই কার্যক্রমে অংশ নিয়েছে।

তিনি আরও জানান, স্বাধীন বাংলাদেশকে প্রথম স্বীকৃতিদানকারী দেশ নেপাল, এশিয়ার অন্যতম পর্যটন সমৃদ্ধ দেশ, যা এই অঞ্চলের বাসিন্দাদের কাছে হিমালয় কন্যা নামে সমাধিক পরিচিত। প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্প পরিবার। বর্তমানে ৬০ হাজার মানুষ সরাসরি এই গ্রুপে কাজ করছে। নেপালে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের কর্মীরা ২০০৫ সাল থেকে কাজ করছে।

ঢাকায় নিযুক্ত নেপালি রাজদূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন সুশীল কুমার লম্সাল, প্রাণ-এর হেড অব এক্সপোর্ট মার্কেটিং আরিফুর রহমানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে গত দুই দিনের ভূমিকম্পে নেপালে মৃতের সংখ্যা চার হাজার ছাড়িয়েছে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে লাশের মিছিল।

এরই প্রেক্ষিতে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের শীর্ষ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ ভূমিকম্পের পরপর মানবতার পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (বিপণন) পরিচালক কামরুজ্জামান কামাল জাগো নিউজকে বলেন, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ শুধু ব্যবসা করে না। ব্যবসার সঙ্গে মানবতা ও সামাজিক দায়বদ্ধতার বিষয়টি আমরা সবসময় গুরুত্ব সহকারে নিয়ে থাকি।

তিনি আরও বলেন, দেশের নানা সংকটেও আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করি কিছু করার। তারই অংশ হিসেবে আমরা হিমালয় কন্যা নেপালের এই বড় বিপর্যয়ে পাশে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা জানি, আমাদের উদ্যোগ বড় কিছু নয়। তবুও দায়িত্ববোধ থেকে কিছু মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি।

## নেপালে বাংলাদেশের ত্রাণবাহী বিমান
## আজকের ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল দার্জিলিং 

এসএ/বিএ/একে/আরআইপি/এএ

আপনার মতামত লিখুন :